প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচন নিয়ে কোনো সমঝোতা করবে না আ.লীগ সরকার

আহমেদ জাফর: আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগ সরকার কোনো সমঝোতা করেনি আর কোনোদিন সমঝোতা করবেও না বলে জানিয়েছেন, আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি।

বৃহস্পতিবার (১২জুলাই) সুত্রা থানা কমিউনিটি সেন্টারে, ২১ জুলাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক গণসংবর্ধনা উপলক্ষে প্রস্তুতি সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার আগামী নির্বাচনে নিয়ে কোনোদিন আলোচনা কার সাথে করেনি এবং এই নির্বাচন নিয়ে সমঝোতা করবেও না। গত নির্বাচনে বিএনপিকে আনার জন্য অনেক চেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু নির্বাচন না এসে ষড়যন্ত্র করে মানুষ হত্যায় লিপ্ত ছিল তারা।

বিএনপির জনগণের উপর আস্থা নেই উল্লেখ করে বলেন, বিএনপি এখন জনগণের ভোটের উপর নির্ভর করে না, তারা বিদেশীদের কাছে যায় বিভিন্ন ধরণা নিয়ে। বিএনপি ক্ষমতায় আসার জন্য বিদেশী দের উপর নির্ভর করে কিন্তু দেশের মানুষের উপর কোনো আস্থা নেই ,তাই জনগণের নির্ভর করে না।

আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে দেশের সর্বস্তরের জনগণ ভোটের মাধ্যমে ক্ষমতায় আনবে এটা জানতে পেরে বিএনপি আবার ষড়যন্ত্র শুরু করেছে এমন অভিযোগ করে কামরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচন নিয়ে আবার ষড়যন্ত্র শুরু করেছে বিএনপি, কোনো সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করলে জনগণ তার উপযুক্ত জবাব দিবে।

কোটা সংস্কার নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি করছে একটি মহল। এটা উদ্দেশ্যপ্রণিত ভাবেই হচ্ছে, যতই ষড়যন্ত্র করুন নির্বাচন বানচাল করার জন্য, কিন্তু নির্বাচন যথা সময় এবং সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। আগামী নির্বাচন সকাল দলের অংশগ্রহণে আশা করে আওয়ামী লীগ। খুব দ্রুত নির্বাচনের সিডিউল ঘোষণা করা হবে। একটি দল নির্বাচনকে বানচাল করার জন্য চেষ্টা করছে। তারা আবার একএগারোর মত সরকারকে ক্ষমতায় আনতে চায়। এই নির্বাচন কমিশনের অধিনে যে কয়টা নির্বাচন হয়েছে শান্তিপূর্ণ ভাবে সুন্দর নির্বাচন হয়েছে। অতিতের মতো নির্বাচন কমিশন একটি ভালো নির্বাচন উপহার দিবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ বলেন,আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকেযে উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন, প্রশংসিত হয়েছেন,এ জন্য আগামী ২১ জুলাই দেশের সর্বস্তরের জনগণ গণসংবর্ধনা দিবে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আর এই গণসংবর্ধনা হবে স্মরণ কালের শ্রেষ্ঠসভা। এজন্য আগামী ১৯ ও ২০ জুলাই প্রতিটি ওয়ার্ড থানা কর্মীদের নিয়ে জনসভায় ও মাইকিং করার জন্য আহ্বান জানান। খেশ হাসিনায় ক্ষমতায় আছে বলেই আওয়ামী লীগ নেতারা বেচে আছে এমন মন্তব্য করে বলেন, আবার ও শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে। এজন্য আওয়ামী লীগের দলীয় নেতাকর্মীদের মাঠে থেকে প্রচার প্রচারণা করার ও আহ্বান জানান।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত,প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আকতার হোসেন, থানা ,ওয়ার্ড কাউন্সিলর নেতা কর্মীরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ