প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নেত্রীকে মুক্ত করে আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো

অধ্যাপক মো. ইউনুস : বিএনপির নিবেদিতপ্রাণ কর্মী হিসেবে ২০০১ সালের নির্বাচনে আমার বিজয়ী হওয়ার মাধ্যমে কুমিল্লা-৫ আসন বিএনপি পেয়েছে। সুতরাং বিএনপির একজন নেতা হিসেবে, কর্মী হিসেবে আমি আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো ইনশা আল্লাহ। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক যে, তিনশত আসনে মনোনয়নের বিতর্কিত সংবাদ ছড়িয়ে দিয়ে জনগণকে একটা বিভ্রান্তিতে ফেলার জন্য একটি কুচক্রী মহল কাজ করে যাচ্ছে। বিএনপির নেত্রীবৃন্দকে হাইজ্যাক করার জন্যই এমন সংবাদ প্রচার করছে। মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্যই তারা এমন করছে। আমার প্রশ্ন, যে মুহূর্তে সারা দেশের বিএনপির নেতাকর্মীরা নেত্রীর মুক্তির জন্য উন্মুখ হয়ে আদালতের দিকে চেয়ে আছে, জামিন বাতিলে তাদের মনে ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে, সে সময়ে কিছু সুযোগসন্ধানী লোক মনোনয়নের ভিত্তিহীন খবর দিয়ে মানুষের মধ্যে বিরক্তির সৃষ্টি করছে। এতে নিশ্চয়ই সরকারী দলের লোকেরা জড়িত থাকতে পারেন।

তারা এসব কাজ করছে যাতে করে আমাদের দলের মধ্যে এক ধরণের বিবাদ সৃষ্টি হয়। এমন কাজকে আমরা সম্পূর্ণভাবে নিন্দা জানাই। বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ যারা এই বিভ্রান্তি নিরসনে বিভিন্ন সময়ে বিবৃতি দিয়ে সত্য বিষয়টি প্রকাশ করেছেন, তাদেরকে স্বাগত জানাই। কুমিল্লা-৫ সহ সারাদেশের বিএনপি নেতা-কর্মীদের এমন সংবাদে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানাই। আমার নেত্রীকে মুক্ত করে আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো, আমি এমন আশাবাদ ব্যক্ত করি। সরকারের কাছে জোর দাবী জানাই, আমার নেত্রীকে অন্যায়ভাবে আটকে না রেখে, তাকে মুক্তি দেওয়া হোক।

আমার প্রত্যাশা, আমাদের দল থেকে এমন প্রার্থীকেই মনোনয়ন দিবে, যাতে করে মনোনয়নপ্রাপ্ত ব্যক্তি পাস করতে পারে। চার বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য হিসেবে আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি, রাজনৈতিকভাবে দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা নেই কিংবা জনগণের নিকট সুপরিচিত নয় এমন প্রার্থীকে বিশেষ বিবেচনায় মনোনয়ন দেয়া ঠিক হবে না। আশা করি সকল ক্ষেত্রে বিএনপি যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন দিবে, যেন তারা নির্বাচিত হয়ে সরকার গঠনে দলকে সহায়তা করতে পারে।

পরিচিতি : সাবেক সংসদ সদস্য, বিএনপি / মতামত গ্রহণ : তাওসিফ মাইমুন/ সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত