প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যার পা ধরে বাঁচার চেষ্টা সেই শিক্ষকও রেহাই পেলেন না!

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে আজ শনিবার হামলার শিকার হন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা। হামলায় গুরুতর আহত হয়ে এখন হাসপাতালে আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক নূরুল হক নূর। ছাত্রলীগ এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা-কর্মীরা।

এদিকে অন্যান্য নেতাকর্মীদের সাথে নূরুলকেও যখন মারধর করা হচ্ছিল, তখন তাকে বাঁচাতে যান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান লাইব্রেরিয়ান এবং তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষক ড. জাভেদ আহমেদ। কিন্তুু তাকেও ছাড় দেয়া হয়নি। তাকেও মারধর করা হয়। এসময় তার হাতের তালু কেটে যায়।

জানা যায়, শনিবার সকালে সোয়া ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে কোটা আন্দোলনের সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল্লাহ নূরকে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকেন কোটাধারীরা। এ সময় জাভেদ আহমেদ এগিয়ে গেলে তার পা জড়িয়ে ধরে বাঁচার চেষ্টা করেন নূর। পরে নূরকে রক্ষা করতে জাভেদ আহমেদ নিজের পরিচয় দিলেও তাতে কোনো কাজ হয়নি।

ড. জাভেদ আহমেদ বলেন, ‘মানুষ মানুষকে এভাবে মারতে পারে না। রাজনৈতিক পরিচয়ের বাইরেও তোমরা সবাই ছাত্র। সহপাঠী সহপাঠীর ওপর এভাবে হামলা করতে পারে না। আমি নিজেকে শিক্ষক হিসেবে পরিচয় দেয়ার পরও তারা আমার ওপরও চড়াও হয়েছে। আমার হাতের তালু কেটে গেছে।’ সূত্র: বাংলা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ