প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জন্মহার বাড়াতে কর্মঘণ্টা কমিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া

লিহান লিমা: কর্মীদের জন্য কর্পোরেট অফিসের সাপ্তাহিক সময় আরো কমিয়ে আনার পদক্ষেপ নিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার। সুস্বাস্থ্যের প্রতি নজর, অবসাদ ও দুর্বলতা কমানোর লক্ষ্যে কর্মীদের আরো বেশি সময় বিশ্রামের সুযোগের লক্ষ্যে এই নিয়ম জারি করে বিশ্বের সবচেয়ে কম জন্মহারের এই দেশটি। ১ জুলাই থেকে বর্তমানে সপ্তাহে ৬৮ ঘণ্টার বদলে ৫২ ঘণ্টা কাজ করবেন দেশটির কর্মীরা।

অর্গানাইজেশন অব ইকোনমিক কর্পোরেশন এন্ড ডেভেলআপমেন্ট জানায়, দক্ষিণ কোরিয়া ছাড়াও মেক্সিকো এবং কোস্টারিকায় দীর্ঘ কর্মঘণ্টা প্রচলিত আছে। দেশটির লিঙ্গ সমতা এবং পারিবারিক মন্ত্রী চুয়াং হুন বেক দক্ষিণ কোরিয়ার কম জন্মহারের জন্য নারীদের অতিরিক্ত কাজ করাকে দায়ী করেন। ওইসিডি এর মতে, ‘কোরিয়াতে প্রতি একজন নারীর সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা ১.২ ভাগ। যা বিশ্বে সর্বনিন্ম।’

২০১৬ সালে কোরিয়রা গড়ে ২ হাজার ৬৯ ঘণ্টা কাজ করেন। মঙ্গলবার মন্ত্রীপরিষদের বৈঠকে মুন বরেন, ‘জুলাই থেকে আমরা নতুন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হব। বাবা-এবং মায়ের সন্তানদের আরো সময় দেয়া প্রয়োজন।’ এছাড়া মুন জে ইন প্রশাসন কর্মঘণ্টা কমানোর সঙ্গে সঙ্গে কোম্পানিগুলোকে আরো অধিক কর্মী নিয়োগ দিতে তাগিদ দেয়ার কথা ভাবছে। কিন্তু সাম্প্রতিক জরিপে দেখা গেছে, ‘৮০ ভাগ কোম্পানিই বাড়তি কর্মী নিতে চায় না। ’

জানুয়ারিতে মুন বলেছিলেন, ‘অতিরিক্ত কর্মঘণ্টা থাকা কোনভাবেই উচিত নয়। সুখী জীবন-যাপনের ক্ষেত্রে টানা কর্মঘণ্টা বড় বাধা, যা কোন রকম বিশ্রামের সুযোগ দেয় না। এছাড়া নির্বাচিত হওয়ার পর দেশটির প্রেসিডেন্ট মুন জে ইন প্রতিঘণ্টায় নূন্যতম মজুরি ৭ ডলার বৃদ্ধি করেছেন, যা গত দুই দশকে সর্বোচ্চ। এমএসএন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ