প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

স্পটলাইটে কেটেছিল প্রথম ক্লোন ‘ডলি: দ্য শিপ’-এর পুরো সময়

লিহান লিমা: জীবনের পুরোটা সময় স্পটলাইটে কেটেছিল প্রথম ক্লোন প্রাণী ডলির। বিশ্বব্যাপি পরিচিত ‘ডলি: দ্য শিপ’ নামে। বিখ্যাত গায়িকা ডলি প্যাট্রনের নামানুসারে তার নাম দেয়া হয়। ফুসফুসে আক্রান্ত হয়ে পৃথিবী ছাড়া ডলির মৃত্যুর ১৫ বছর হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তাকে নিয়ে আগ্রহ এতটুকুও কমে নি।

১৯৯৬ সালের ৫ জুলাই ব্রিটেনের রোজলিন ইনস্টিটিউটে তার মাধ্যমেই চিকিৎসা বিজ্ঞানের অভূতপূর্ব এক অগ্রগতি দেখে বিশ্ব। ক্লোনিং রিসার্চ টিমের বিজ্ঞানী প্রফেসর স্যার ডক্টর ল্যান উইলমুট বলেন, ‘একটি সাধারণ ভেড়ার দেহকোষ থেকে একটি পরিপূর্ণ ভেড়াই ডলি।’ ডলির জন্মের সময়েই, প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের শরীরবিদ, ডক্টর লি সিলভার বলেন, ‘এর মানে হল আমাদের কোন সীমারেখা নেই। সব সায়েন্স ফিকশনই সত্যি। বলা হয়েছিল ক্লোনিং কখনোই সম্ভব না, কিন্তু এখন তা হয়েছে এবং ২০০০ সালের আগেই।’

ডলির এক বছর বয়সেই বিশ্লেষকরা দেখেন, তার টোলামোরেস সাধারণ ভেড়ার থেকে ছোট। ক্রোমোজোমের শেষ প্রান্তকে খাটো হতে দিয়ে, টেলোমিয়ার ক্রোমোজোমের শেষ প্রান্তের জিন ক্ষয় রোধ করে। এরমানে, ডলি তার বয়সের চেয়েও অনেক বড় হয়ে জন্ম নিয়েছে। ডলির জীবন কাটে ইনস্টিটিউটের অন্য ভেড়াদের সঙ্গে। মোট ৬ সন্তানের জন্ম দেয় ডলি। ২০০০ সালে শেষ ভেড়া জন্ম দেয়ার সময় তার ফুসফুসে ক্যান্সার ধরা পড়ে। ২০০৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে মারা যায় ডলি। মৃত্যুর পর তার দেহ এডিনবোরার স্কটল্যন্ড ন্যাশনাল মিউজিয়ামে দান করা হয়। এখন পর্যন্ত ডলি ওই জাদুঘরের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রদশর্নী।

ডলির মৃত্যু তার জীবনের মতই বিতর্কিত ছিল। একটি সাধারণ ভেড়ায় বয়স ১০ বছর, কিন্তু মাত্র ৬ বছর বেঁচে ছিল ডলি। যা ক্লোনকৃত প্রাণীর আয়ু এবং ক্লোনিংয়ের নৈতিকতা নিয়ে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেয়। ২৭৭ বারের চেষ্টার পর বেঁচে যাওয়া ক্লোন ভেড়া ডলির জন্ম দেয়া সম্ভব হয়েছিল। চীনও ৭০ বারের চেষ্টার পর দুই বানরের ক্লোন করতে সক্ষম হয়।

তবে ডলির জন্ম এবং মৃত্যুর পর ক্লোনিংয়ের বিষয়টি অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে যায়।

ডলির পর অনেক কোম্পানিই ক্লোনিংয়ের প্রস্তাব দিতে থাকে। যেমন, ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ ডলারে কুকুরের ক্লোনিং করা যায়। পোলো ঘোড়ার ক্লোনিংয়ে লাখে ১ লাখ ২০ হাজার। সম্প্রতি ব্রিটেন বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীদের রক্ষার জন্য ক্লোনিংয়ের পদ্ধতি বেছে নিয়েছে। চীন জানুয়ারিতে দুইটি বানরের ক্লোনিং করে। তবে বানরের ক্লোনিংয়ের পর মানব ক্লোনিংয়ের বিষয়টি আবারো সামনে বলে আসে। তবে এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানী কুইং সান বলেন, ‘পারমাণবিক অস্ত্র এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মত ক্লোনিং প্রযুক্তিরও বিপরীত দিক আছে। তবে মানব ক্লোনিংয়ের কোন সম্ভাবনা নেই।’ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপসহ বিশ্বের মোট ৭০টি দেশে মানব ক্লোনিং নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ