প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাকিস্তানে সংরক্ষিত নারী আসন ৬০

ইমরুল শাহেদ : পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৫ জুলাই। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চলছে নানা হিসাব-নিকাশ। কিন্তু এখন যারা প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, তাদের পাশাপাশি চলছে মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত আসনের মনোনয়ন নিয়ে নানা জল্পনা। জাতীয় সংসদে মহিলা সংরক্ষিত আসন সংখ্যা হলো ৬০। তাতে কারা মনোনয়ন পাবেন সেটা নিয়ে দল ও কর্মীদের মধ্যে মতবিরোধও দেখা দিচ্ছে। জাতীয় সংসদে আসন সংখ্যা ৩৪২। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলকে দেখা যায়, এসব আসনের জন্য তারা প্রভাবশালী রাজনৈতিক পরিবারের সদস্যদের প্রাধান্য দিচ্ছেন। কিন্তু যারা প্রকৃত রাজনৈতিক কর্মী তাদের নাম তালিকায় কদাচিতই পাওয়া যায়। যেসব নেতারা এই তালিকা প্রস্তুত করেন তাদের হাতেই দলের পুরো ক্ষমতা সংরক্ষিত।
ইদানিং অবশ্য অর্থনৈতিকভাবে ক্ষমতাশালী বা রাজনৈতিক পরিবার থেকে সংরক্ষিত আসনের জন্য মহিলা প্রার্থী মনোনয়নের বিষয়ে দলের মধ্যেই প্রতিবাদ উঠতে শুরু করেছে।
পাকিস্তানের প্রায় সবগুলো রাজনৈতিক দলই সংবিধানের ২৫ ধারায় সংরক্ষিত নারীদের জন্য সমান অধিকারের কথা বলে থাকেন। তারা বলে থাকেন নাগরিকদের জন্য সমান অধিকার সমুন্নত থাকবে। তারপরেও তাদের আচরণে বৈষম্যটা নজরে চলে আসে। বিশেষ করে নির্বাচনের সময় এই বৈষম্য বেশি স্পষ্ট হয়ে উঠে। তখন মনে হয় নারীদের সম্পর্কে রাজনৈতিক দলগুলো যা বলে থাকে তার সবই যেন কথার কথা।
তারপরও এ বছর পাকিস্তানে অতীতের নির্বাচনের চাইতে অনেক বেশি নারীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ২০১৭ সালের ইলেকশনস এ্যাক্টে ব্যবস্থা রাখা হয়েছে যে, জাতীয় সংসদ ও প্রাদেশিক নির্বাচনে পাঁচ শতাংশ আসন নারীদের জন্য বাধ্যতামূলকভাবে বরাদ্দ রাখতে হবে। যাহোক, বিভিন্ন দলের প্রার্থীর যে তালিকা এ পর্যন্ত প্রকাশিত হয়েছে তাতে হয় রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতা থেকে তারা এ ব্যবস্থা মানছেন, বা এ ব্যাপারে আন্তর্জাতিক নিয়ম নীতি অনুসরণ করছেন। ডন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত