প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার শাস্তি হিসেবে সেনার চাকরি!

স্পোর্টস ডেস্ক: এবারের বিশ্বকাপে ইন্দ্রপতনের নেপথ্যে তারাই। বিশ্বকাপ থেকে জার্মানির স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে তাদেরই দক্ষতাতেই। গতবারের বিশ্বজয়ীদের জালে দুবার বল জড়িয়ে দিয়েও অবশ্য শেষরক্ষা হয়নি। রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যেতে হয়েছে সাউথ কোরিয়াকে। তার জন্য শাস্তিও পেতে হতে পারে ফুটবলারদের। সেই শাস্তি হিবেসে তাদের সম্ভবত সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে হবে।

বিশ্বকাপের নকআউটে খেলার জন্য সাউথ কোরিয়া ‘যোগ্য’ নয় বটে, তবে জার্মানির মতো দলকে রীতিমতো নাস্তানাবুদ করে ছেড়েছে তারা। মুলার-ওজিলরা কোনওভাবেই কোরিয়ার ডিফেন্স ভাঙতে পারেননি। উল্টো দুটি গোল খেয়েছে। শেষ গোলটার সময় তো বিশ্বসেরা গোলকিপার ম্যানুয়েল নয়্যারকে রীতিমতো অসহায় মনে হয়েছিল।

এহেন অঘটন ঘটাতে সক্ষম হলেও সাউথ কোরিয়ার ফুটবলারদের সম্ভবত শাস্তির মুখে পড়তে হচ্ছে। দু-বছর সেনায় কাজ করতে হতে পারে তাদের।

কেন এই শাস্তি? শুধু কি খারাপ খেলার জন্য? হুবহু তা বলা যাবে না। কারণ সে দেশের নিয়ম অনুযায়ী, ১৮-৩৫ বছর বয়সী যুবাদের বাধ্যতামূলক অন্তত দু’বছর দেশের জন্য কাজ করতে হবে। এই দলের খেলোয়াড়রা সে নিয়ম থেকে ছাড় পেয়েছিলেন। তবে বিশ্বকাপ বিপর্যয়ের পরও কি তারা নিয়মের ব্যতিক্রমের সুবিধা পাবেন? তা স্পষ্ট নয়। যদি দেশের নিয়ম মানতে হয় তাদেরও অন্তত দু’বছর সেনার কাজ করতে হতে পারে। সেক্ষেত্রে বেশ কয়েকজন প্রতিভাবান ফুটবলারের ক্যারিয়ার অঙ্কুরে বিনষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

মস্কোর এক সংবাদমাধ্যম অন্তত এমনটাই জানাচ্ছে। এই রকম খবর দিয়েছে মার্কিন পত্রিকা ইউএস টুডেও। যে সিদ্ধান্তে বেশ অখুশি সাউথ কোরিয়ার ফুটবলপ্রেমীরা।

অবশ্য এরকম স্বৈরতান্ত্রিক সিদ্ধান্ত শুধু সাউথ কোরিয়ার নয়। হেরে যাওয়ার পর দেশের পক্ষ থেকে দুই ফুটবলারকে শাস্তি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব। ২০১০ বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার পর শাস্তির মুখে পড়তে হয়েছিল সাউথ কোরিয়ার প্রতিবেশি কিম জন উনের দেশ নর্থ কোরিয়ার খেলোযাড়রদেরও। চ্যানেলআই অনলাইন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত