প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রস্তুতি সারলেন বাংলাদেশের বোলাররাও

স্পোর্টস ডেস্ক: ড্র হওয়া প্রস্তুতি ম্যাচের একটি মুহূর্তঅ্যান্টিগায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রেসিডেন্ট একাদশের বিপক্ষে ড্র হওয়াদুই দিনেরম্যাচে প্রস্তুতিটা ভালোই হলো বাংলাদেশের। ব্যাটসম্যানদের রানের পর বোলাররাও পেয়েছেন উইকেটের দেখা। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৪০৩ রানের জবাবে প্রেসিডেন্ট একাদশ ৮ উইকেটে ৩১০ রান করার পর শেষ হয়ে যায় দ্বিতীয় ও শেষ দিনের খেলা।

প্রস্তুতি ম্যাচটি ড্র হলেও মূল লড়াইয়ের আগে বাংলাদেশ তার আসল কাজটা সেরে রাখলো। ব্যটিংয়ে তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহর সেঞ্চুরির সঙ্গে সাকিব করেছেন হাফসেঞ্চুরি। বোলিংয়ে আবু জায়েদ, শফিউল ইসলামের সঙ্গে উইকেট উৎসব করেছেন রুবেল হোসেন, কামরুল ইসলাম রাব্বি, মাহমুদউল্লাহ ও মুমিনুল হক। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ ঝালিয়ে নিয়েছে নিজেদের।

টস জিতে প্রথম দিনে বংলাদেশ তুলেছিল ৪০৩ রান। জবাবে শুক্রবার দিনের শুরুতেই বাংলাদেশি বোলারদের তোপের মুখে পড়ে স্বাগতিকরা। দলীয় ৪ রানে ২ উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়া স্বাগতিকদের উদ্ধার করেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি শিবনারায়ণ চন্দরপলের ছেলে ত্যাগনারায়ণ চন্দরপল ও অধিনায়ক শামরাহ ব্রুকস।

যদিও তৃতীয় উইকেটে তাদের ৫২ রানের জুটি ভাঙেন কামরুল। তার দুর্দান্ত ডেলিভারিতে ব্যক্তিগত ২৮ রান করে ত্যাগনারায়ণ বোল্ড হয়ে ফিরে যান প্যাভিলিয়নে। এরপর আরও ৯ রান করে লাঞ্চ বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা।

প্রস্তুতি ম্যাচটিতে পার্থক্য গড়ে দেন শিমরন হেটমায়ার ও শামরাহ ব্রুকস। তারা চতুর্থ উইকেটে যোগ করেন ১৩০ রান। ৭২ রান করা উইন্ডিজ প্রেসিডেন্টস একাদশের অধিনায়ক শামরাহ ব্রুকসকে এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন শফিউল। চা বিরতির পরপরই ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা শিমরন হেটমেয়ারকে ফেরান রাহী। দলের হয়ে সর্বোচ্চ স্কোর তারই, আউট হওয়ার আগে ১৩৮ বলে ১৯ চার ও ১ ছক্কায় ১২৩ রানের চমৎকার ইনিংস খেলে যান হেটমায়ার।

বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল বোলার আবু জায়েদ রাহী। তিনি ৩৯ রান খরচায় নিয়েছে ২ উইকেট। শফিউলও ২ উইকেট পেয়েছেন ৪৮ রান খরচায়। রুবেল, কামরুল, মাহমুদউল্লাহ ও মুমিনুল প্রত্যেকে একটি করে উইকেট নিয়েছেন।

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ৪০৩ রান সংগ্রহ করেছিল। তামিম ও মাহমুদউল্লাহ সেঞ্চুরি করে স্বেচ্ছায় অবসরে যান। তামিম করেছেন ১২৫ রান, আর মাহমুদউল্লাহর ব্যাট থেকে এসেছে ১০১ রান। তাদের সঙ্গে হাফসেঞ্চুরি পূরণ করেছেন সাকিব। বাংলাদেশ অধিনায়ক খেলে যান ৬৭ রানের ইনিংস। দলের তিন সিনিয়র খেলোয়াড়ের ব্যাটে ভর করে অলআউট হওয়ার আগে বাংলাদেশের রান ৪০০ ছাড়ায়। ইমরুল কায়েস খেলেছেন ৪০ রানের ইনিংস।

প্রসঙ্গত, ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে এই সিরিজে দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। ৪ জুলাই শুরু হবে প্রথম টেস্ট। বাংলাট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত