প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইরানে তাকে দেখা গেছে

ডেস্ক রিপোর্ট : বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় হাওয়া ভবনের প্রভাবশালী নেতা ও তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব আবুল হারিছ চৌধুরী এখন কোথায়— এ নিয়ে চলছে নানামুখী গুজব। কেউ বলছেন, তিনি মারা গেছেন, আবার কেউ বলছেন তিনি এখনো বেঁচে আছেন। যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতারা বলছেন, হারিছ চৌধুরী এখন ইরানে অবস্থান করছেন। তিনি এখন ক্যান্সারে আক্রান্ত। সেখানে নাগরিকত্ব নিয়ে চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছেন। হারিছ চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে আছেন, এটা সঠিক নয় বলে জানান নেতারা। এ প্রসঙ্গে জাতীয়তাবাদী সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংস্থা-জাসাসের যুক্তরাষ্ট্র শাখার একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা লন্ডনে বসবাসরত হারিছ চৌধুরীর এক নিকটাত্মীয়ের বরাত দিয়ে জানান, ‘হারিছ চৌধুরী ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত। নিয়মিত রক্ত পরিবর্তন করতে হয়। ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে দুইবার তিনি আমেরিকাতে চিকিৎসা করালেও আরোগ্য লাভ হয়নি। তিনি ইরানে তার এক নিকটাত্মীয়ের তত্ত্বাবধানে বর্তমানে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ওই নেতা আরও জানান, হারিছ চৌধুরী ইরানের নাগরিকত্ব নিয়েছেন। এখন তার শারীরিক অবস্থার বেশ উন্নতি হয়েছে। হারিছ চৌধুরী ব্রিটেনে আত্মগোপন করেছেন এই তথ্য সঠিক নয়। মাঝে মধ্যে হারিছ চৌধুরী মূলত ইসলামী দেশগুলোতে ভ্রমণ করছেন। ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসা বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে তখনকার প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার দাপুটে রাজনৈতিক সচিব ছিলেন হারিছ চৌধুরী।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তা হলেও তিনি ছিলেন তৎকালীন আলোচিত হাওয়া ভবনের নিয়ন্ত্রক ও প্রভাবশালী নেতা। তার ভাড়া করা বাসায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান অফিস করতেন। সেখান থেকেই দল ও সরকার পরিচালনায় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত আসত বলে অভিযোগ ছিল।
সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত