প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বয়সটাকে আটকে রাখতে চান?

নিজস্ব প্রতিবেদক : চিরসুন্দর ও নবীন থাকতে চান? কয়েকটা খাবার আপনাকে দেবে তারুণ্যঝলমল চেহারা। আসুন জেনে নেই সারাবাংলার রিপোর্ট থেকে এমন ৭টি খাবারের নাম, যা খেলে আপনি থাকবেন চিরতরুণ !

ডালিম

আমাদের দেশীয় ফল হিসেবে ডালিম অনেক জনপ্রিয় একটি ফল। ডালিমে রয়েছে পর্যাপ্ত ভিটামিন সি যা আপনার ত্বককে কুঁচকানো ভাব থেকে মুক্তি দিতে পারে এবং সূর্যের ক্ষতিকর রশ্নি থেকে রক্ষা করে। গবেষণায় দেখা গেছে যে, ডালিমের বিচির জুসে এলেজিক এসিড এবং পিউনিকেলাজিন নামের দুটি উপাদান রয়েছে যা ক্ষতিকর জীবাণু থেকে আপনার ত্বককে সুরক্ষিত রাখার পাশাপাশি মসৃণ ও সতেজ রাখবে। নিউ ইয়র্ক সিটির পুষ্টিবিদ মিঃ জ্যাকি নিওজেনট বলেন, শুধুমাত্র ডালিমের জুস নয় বরং প্রতি সপ্তাহে এক কাপ ডালিমের বিচি খেতে পারলে আপনার ত্বক হবে আরও সতেজ ও সুস্থ।

কালো আঙ্গুর

আঙ্গুর আপনার ত্বকে অক্সিডেনটের কাজ দ্রুত করবে ও ত্বককে ক্ষতিকর জীবাণু থেকে রক্ষা করবে। কাজের জন্য আমাদের বাইরে যেতে হয়, অনেক সময় সুরক্ষা কবজ হিসেবে সানস্ক্রিন ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু প্রাকৃতিকভাবে আঙ্গুর বা আঙ্গুরের রস আপনাকে রোদে পোড়া ত্বক থেকে মুক্তি দেবে। এমনকি মানসিক চাপের ফলে আমাদের চামড়ায় একটি বয়সের ছাপ দেখা দেয় যা দূর করতে সপ্তাহে অন্তত কয়েকদিন আঙুর খেতে পারেন।

পালং শাঁক

পালং এমন একটি শাক যা আপনার শরীরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। ভিটামিন সি এর পাশাপাশি ভিটামিন এ জাতীয় পদার্থে ভরপুর পালং শাক। ত্বকের নমনীয়তা রক্ষা ও আয়রনের অভাব পূরণ করে পালং শাক ।

মাছ

দেশি মাছ থেকে আমরা আমিষ পেয়ে থাকি। কিছু মাছ থেকে তেল জাতীয় পদার্থ পেয়ে থাকি। গোল্ড ফিশ, সারডিন, স্যামন এবং সামুদ্রিক মাছ এমনই তেল জাতীয় মাছ। এই মাছ খেলে আমাদের শরীরে তেলের অভাব পূরণ হয় যা আপনার ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে।

গ্রিন টি

আমাদের শরীরের আমরা প্রায়ই বিভিন্ন রকমের বাদামী দাগ দেখতে পাই যা দেখতে অনেকটা তিলের মত দেখা যায়। রোদের কারনেই অনেক সময় এই ধরনের দাগ আমাদের শরীরে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। এই ক্ষতিকর প্রভাব কাটাতে দিনে অন্তত এক কাপ গ্রিন টি আপনার সঙ্গী হতে পারে।

তরমুজ

তরমুজে রয়েছে ভিটামিন সি ও পটাসিয়াম, যা আপনার শরীরের পানির ঘাটতি কমিয়ে দিতে পারে। এক টুকরো তরমুজ খান এবং বাড়তি অংশটুকু না ফেলে দিয়ে আপনার ত্বকে ঘষে নিন এতে আপনার ত্বকে আসবে একটি ঝলমলে ভাব।

অলিভ অয়েল

জলপাই তেল যদি খাবার রান্নায় ব্যবহার করেন তাহলে আপনার হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যাবে। ত্বকে অলিভ অয়েল ব্যবহারে ত্বক হবে নমনীয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত