প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

বাংলাদেশসহ ৫ এশিয়ান দেশের উপর শুল্ক কমালো চীন

আসিফুজ্জামান পৃথিল: বাংলাদেশসহ ৫টি এশিয়ান দেশের পণ্যে আমদানি শুল্ক কমিয়েছে চীন। অপর ৪টি দেশ হলো ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, শ্রীলঙ্কা ও লাওস। ধারণা করা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের সাথে চলমান বানিজ্য যুদ্ধ নিজ অবস্থান শক্তিশালী করতেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বৃহষ্পতিবার চীনা বাণিজ্য মন্ত্রণালয় একথা জানায়।

আগামী পহেলা জুলাই থেকে এই নতুন শুল্ক কার্যকর হবে। ৬ দেশের স্বাক্ষরকৃত এশিয়া প্যাসেফিক বানিজ্য চুক্তির আওতায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এই চুক্তির আওতায় রয়েছে ১০ হাজারেরও অধিক পণ্য বলে নিশ্চিত করেছে চীনা বানিজ্য মন্ত্রণালয়। ভারতে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লুও জাউহুই টুইটারে জানিয়েছেন, শুল্ক কমানো বা প্রত্যাহার করা হবে এমন ৮৫০০ পণ্যের তালিকা তৈরি করেছে চীন। এর মধ্যে রয়েছে, সয়াবিন, ইস্পাত, অ্যালুমিনিয়াম এবং কৃষি ও রসায়ন খাতের পণ্য। এই পণ্যের মধ্যে বেশ কিছু পণ্য যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানি করা পণ্যের বিকল্প হয়ে উঠতে পারে। দুই দেশ আগামী সপ্তাহ থেকে এক অপরের উপর ৩৪ বিলিয়ন ডলার করে শুল্কারোপ করতে যাচ্ছে। ফলে যুক্তরাষ্ট্রের রপ্তানি করা এসব পণ্যের দর স্বাভাবিকভাবেই বেড়ে যাবে। যদিও এশিয়া প্যাসেফিক বানিজ্য চুক্তি যুক্তরাষ্ট্র-চীন বানিজ্য সংঘাত শুরুর আগেই হয়েছিল, তবুও কিছু বিশ্লেষক মনে করছেন বেইজিং এই চুক্তিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি বার্তা হিসেবে ব্যবহার করবে।

সয়াবিনের ব্যভসা যুক্তরাষ্ট্র এবং চীন দুই পক্ষের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ। সয়াবিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান কৃষিজাত রপ্তানি পণ্য এবং চীন এর বৃহত্তম ক্রেতা। মূলত পশুখাদ্য হিসেবে ব্যবহারের জন্যই সয়াবিন কিনে থাকে চীন। চীন এই সয়াবিনের উপর ২৫ শতাংশ শৃল্কারোপ করেছে। এই ব্যাপারে তাৎক্ষনিকভাবে বাংলাদেশ, ভারত বা শ্রীলঙ্কার সরকারের কোন মন্তব্য পায়নি সিএনএন। আর দক্ষিণ কোরিয়া ও লাওসের কারো সাথে যোগাযোগ সম্ভব হয়নি।

গত বছর মাত্র ১৫৫ মিলিয়ন ডলারের সয়াবিন রপ্তানি করে ভারত। যার ৬০ শতাংশই গিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। ভারতের সরকারের তথ্যানুযায়ী চীনে কোন সয়াবিন রপ্তানি হয়নি। চীনের সাথে ভারতের তেমন বাণিজ্যিক সুসম্পর্ক নেই। সর্বশেষ এই দুই প্রতিবেশীর চীনা সোলার প্যানেলের উপর ভারতীয় শুল্ক নিয়ে বাণিজ্য লড়াই হয়েছে।

চীনে শুধু রপ্তানি বাড়ানোই নয়, চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য যুদ্ধ বাংলাদেশ সহ এই ৫ দেশের মধ্যে নতুন বাণিজ্য সুযোগ তৈরি করেছে। চীন শুল্ক কমানোয় এই দেশগুলো এখন যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে খাদ্যদ্রব্য ক্রয় করে তা চীনের কাছে বিক্রি করতে পারবে। – সিএনএন মানি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত