প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

ক্রসফায়ার বন্ধসহ ১০ দফা দাবিতে বাসদ রাজধানীতে সমাবেশ করবে শনিবার

রফিক আহমেদ : জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন, রাষ্ট্রীয় হেফাজতে বিচারবহির্ভূত হত্যা-গুম-ক্রসফায়ার বন্ধসহ জনজীবনের সংকট নিরসনে ১০ দফা দাবিতে বাসদ (মার্কসবাদী) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শনিবার বেলা ৫টায় সমাবেশ করবে। শুক্রবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনের বার্তা প্রেরক মানস নন্দী এসব কথা জানান।

মানস নন্দী জানান, বাসদ (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় কার্যপরিচালনা কমিটি ঘোষিত মাসব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১০ দফা দাবিতে ২৫ জুন থেকে ২৪ জুলাই সারাদেশে জেলা-উপজেলা-এলাকায় প্রচার-গণসংযোগ, মিছিল, হাটসভা, পথসভা, পদযাত্রা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে এবং ২৫ জুলাই ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এবং জেলায় জেলায় ডিসি অফিসের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ কর্মসূচি পালিত হবে।

মানস নন্দী জানান, ১০ দফা দাবিসমূহ হচ্ছে- এক. জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন করা। নির্বাচনে টাকার খেলা বন্ধ করা, জামানত কমানো, দল নিবন্ধন সহজ করা। সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্ব ব্যবস্থা চালু করা। দুই. রাষ্ট্রীয় হেফাজতে বিচারবহির্ভূত হত্যা-গুম-ক্রসফায়ার বন্ধ করা। মত প্রকাশের অধিকার হরণ করা চলবে না। তিন. দুর্নীতি ও লুটপাট বন্ধ করা। কালো টাকার মালিক-অর্থপাচারকারী-ঋণখেলাপী-ব্যাংক লুটেরাদের গ্রেপ্তার করা, আয়ের সাথে সঙ্গতিবিহীন সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা। চার. নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে দোষীদের দ্রুত বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া। মাদক, পর্ণোগ্রাফী ও জুয়ার বিস্তার রোধ করা। মাদকাসক্তদের পুনর্বাসন করা। পাঁচ. চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে রাখা, রেশন ব্যবস্থা চালু করা। ওএমএসে ১০ টাকা কেজি দরে চাল সরবরাহ করা। গ্যাস-বিদ্যুতের বর্ধিত দাম প্রত্যাহার করা। রেলসহ সরকারি গণপরিবহন বিস্তৃত করা। নি¤œ আয়ের মানুষের জন্য সরকারি উদ্যোগে অল্প ভাড়ায় বহুতলবিশিষ্ট আবাসন প্রকল্প বা কলোনী নির্মাণ করা। বাড়িভাড়া-গাড়িভাড়া নিয়ন্ত্রণ আইন কার্যকর করা।

মানস নন্দী জানান, ছয়. শ্রমিকদের নূন্যতম জাতীয় মজুরী ১৬০০০ টাকা নির্ধারণ, অবাধ ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার ও কর্মক্ষেত্রে নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিত করা। সাত. কৃষি ফসলের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে হাটে হাটে সরকারি ক্রয়কেন্দ্র চালু করা। খাদ্যশস্যের রাষ্ট্রীয় বাণিজ্য চালু করা। স্বল্পমূল্যে কৃষি উপকরণ সরবরাহ করা। ক্ষেতমজুরদের সারা বছর কাজ ও রেশন চালু করা। আট. ‘ঘরে ঘরে চাকরির প্রতিশ্রুতি রক্ষা করা। বেকারদের নাম তালিকাভুক্ত করে কর্মসংস্থান না হওয়া পর্যন্ত তাদেরকে বেকার ভাতা দেওয়া। রাষ্ট্রীয় শূণ্যপদে নিয়োগ দেওয়া। সরকারি চাকরিতে কোটা কমানো। নয়. শিক্ষা বাণিজ্য ও প্রশ্ন ফাঁস বন্ধ করা। পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষা বাতিল করা। চিকিৎসা খাতে ব্যবসা বন্ধ করা। সরকারি স্বাস্থ্যব্যবস্থার অধীনে প্রত্যেক নাগরিকের উপযুক্ত চিকিৎসা প্রাপ্তি নিশ্চিত করা এবং দশ. ভারতের কাছ থেকে তিস্তাসহ সব অভিন্ন নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা আদায় করা। রামপালে সুন্দরবন ধ্বংসকারী কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎপ্রকল্প বন্ধ করা। ঝুঁকিপূর্ণ ও ব্যয়বহুল বৃহদাকৃতির রুপপুর পরমাণু বিদ্যুৎপ্রকল্পের পরিবর্তে পরীক্ষামূলক ছোট পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত