প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

মাদকের নতুন আস্তানা
মোহাম্মদপুর শিয়া মসজিদ বস্তি

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : রাজধানীতে মাদকের নতুন আস্তানা এখন মোহাম্মদপুর শিয়া মসজিদ বস্তি এলাকা। জেনেভা ক্যাম্পের পর এবার শিয়া মসজিদ বস্তি এলাকায় চলছে মাদকের কারবার। স্থানীয়রা এর প্রতিবাদ করে উল্টো তোপের মুখে আছেন বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, এ বস্তির চিহ্নিত মাদক কারবারি রিনি। একাধিকবার পুলিশের হাতে ধরা পড়লেও থামেনি তার ব্যবসা। এ কাজে সহায়তা করেন তারই স্বামী রায়হান। আর তাদের অন্য সহযোগিরা হলো- কুট্টি, কুট্টির মা ও কাইলা। এ ক’জন মিলে বস্তি এলাকায় মাদকের স্পট গড়ে তুলেছেন।

সম্প্রতি জেনেভা ক্যাম্পের শীর্ষ তালিকাভুক্ত মাদক চোরাকারবারি জয়নাল আবেদীন ওরফে পাঁচু (২৯) ও তার স্ত্রী ‘ইয়াবা সম্রাজ্ঞী’ খ্যাত ফারহানা আক্তার ওরফে পাপিয়াকে (২৫) রাজধানীর লালবাগ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ২০ হাজার পিস ইয়াবা, ১টি আগ্নেয়াস্ত্র, ৫ রাউন্ড গুলি ও বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়।

গতমাসে মাদকের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান জোরদার করা হলে তারা আত্মগোপনে চলে যায়। পরে কাউন্টার টেরোরিজম এ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি) স্পেশাল এ্যাকশন গ্রুপ গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে মোহাম্মদপুর ও মতিঝিলসহ একাধিক থানায় মাদক ও অস্ত্র আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। এই পাপিয়ার সহযোগি হিসেবে কাজ করতো রিনি। জেনেভা ক্যাম্পে অভিযানের পর পালিয়ে শিয়া মসজিদ বস্তিতে আস্তানা গেড়েছে। তার একাধিক সহযোগি মাদক সরবরাহ করছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আযাদ বলেন, মোহাম্মদপুর এলাকায় এখন কোন মাদক স্পট নেই। জেনেভা ক্যাম্পসহ যেসব স্থানে বিক্রি চলছে তা খুবই গোপনে। সাদা পোশাকে পুলিশ পুরো এলাকায় দায়িত্ব পালন করছে। শিয়া মসজিদ বস্তিতে মাদক স্পট থাকলে শিগগিরই তারা ধরা পড়বে। প্রায় প্রতিদিনই এলাকার মাদক বিক্রেতাদের কেউ না কেউ ধরা পড়ছে বলে জানান তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত