প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘যুক্তরাষ্ট্রের চোখে ইরান হলো পরবর্তী উত্তর কোরিয়া’

ইমরুল শাহেদ : ভারতে তিন দিনের সফরে থাকা জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রর দূত নিকি হ্যালি বৃহস্পতিবার দিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে ইরান, চীন এবং পাকিস্তানের বিষয়ে কঠোর মনোভাব দেখালেও ভারতের প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের দৃষ্টিতে ইরান হলো পরবর্তী উত্তর কোরিয়া।’ এর সঙ্গে তিনি যোগ করেন, ‘তবে আমরা প্রমাণ ছাড়া এটা বিশ্বাস করতে চাই না। আমরা দেখতে পাচ্ছি, ইরানের সঙ্গে চুক্তি থাকা সত্ত্বেও একের পর এক সিদ্ধান্ত প্রস্তাব লংঘন করে চলেছে তারা।’
হ্যালি বলেন, চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র একটা ফলপ্রসূ সম্পর্ক চায়। কিন্তু তারা যুক্তরাষ্ট্রের মতো উদার ভঙ্গিতে তার মূল্যায়ন করতে চায় না। ভারতসহ অন্যের অধিকারের দিকে না তাকিয়ে আঞ্চলিক সম্প্রসারণবাদের কারণে তাদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক সীমিত হয়ে পড়বে।
পরিশেষে তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানকে অংশীদার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের খুব পছন্দ। কিন্তু দেশটি সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য হয়ে উঠেছে। আমরা এর পরিবর্তন চাই।’
হ্যালি বলেন, ‘উত্তর কোরিয়া পরমাণু অস্ত্র বানানোতে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে এবং কঠোর নিষেধাজ্ঞার মধ্য দিয়ে তাদের উপর প্রবল চাপ সৃষ্টি করা হয়েছে। ইরান হলো একটি মোল্লাতান্ত্রিক স্বৈরশাসকের দেশ। আমরা সকলেই তাদের পরমাণু হুমকির মুখে রয়েছি।’
‘অন্য দিকে’ তিনি বলেন, ‘ভারতের কাছেও পরমাণু অস্ত্র আছে। কিন্তু সেটা সম্মান দেখানোর মতো। এর কারণ ভারত হলো একটি গণতান্ত্রিক দেশ এবং পরমাণু নিয়ন্ত্রণের তিনটি গ্রুপেরই সদস্য। তাই ভারত এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বন্ধুত্ব স্বাভাবিক আছে।’
তিনি বলেন, ‘শানগ্রিলা সংলাপে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মুক্ত ও খোলামেলা ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের কথাই বলেছেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও এই ভিশনেই বিশ্বাস করেন। ভারতের ভিশন উচ্চাকাংখী হলেও বাস্তববাদী।’
যুক্তরাষ্ট্র-ভারতের সম্পর্ক ঐকমত্যের ভিত্তিতে গড়ে উঠেছে এবং পারস্পরিক সন্দেহটা পরিবর্তিত হয়েছে বন্ধুত্বে এবং অংশীদারিত্বে। ‘যুক্তরাষ্ট্রে আজ, ভারতীয় মার্কিনিরা উচ্চশিক্ষিত এবং উচ্চ পর্যায়ের জনহিতকর সংখ্যালঘু।’ ইয়ন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ