প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

২০১৭-১৮ অর্থবছরে ডিএসই প্রধান অর্জন কৌশলগত অংশীদার

মাসুদ মিয়া ও ফয়সাল মেহেদী: ২০১৭-১৮ অর্থবছর দেশের শেয়ারবাজারের জন্য তাৎপর্যপূর্ণ একটি বছর। এই বছরের ১৪ মে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন চীনের দুই স্টক এক্সচেঞ্জ শেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জ ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জকে কৌশলগত অংশীদার হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) লিমিটেড।

২০১৭-১৮ অর্থবছরের অর্জন সম্পর্কে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক কে এ এম মাজেদুর রহমান বলেন, দীর্ঘ কর্মকান্ডের পর বিশ্বের অন্যতম স্টক এক্সচেঞ্জ চীনের সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ ও শেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জের কনসোর্টিয়াম ডিএসইর কৌশলগত অংশীদার হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হওয়ায় ডিএসই এক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। এতে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেড কৌশল ও কারীগরি সহায়তার ক্ষেএে আরো একধাপ এগিয়ে যাবে বলে আশা করা যায়।

বাজার সম্পর্কে তিনি বলেন, আগের বছরের তুলনায় লেনদেন ও সূচক সামান্য কমলেও বাজার মূলধন বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এর ভিত পূর্বের যে কোন সময়ের তুলনায় অনেক বেশী শক্তিশালী ও মজবুত হয়েছে। আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে তিনি বলেন, ভালো মৌলভিওি সম্পন্ন কোম্পানি ও নতুন পণ্য বাজারে যুক্ত করে দেশের শেয়ারবাজারকে বৈচিত্রময় বিনিয়োগের কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলে দেশী-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করাই ডিএসইর এখন প্রধান লক্ষ্য।

ডিএসই জানায়, অর্থবছরের প্রথম ছয় মাস বাজার গতিশীল অবস্থা থাকলেও অর্থবছরের দ্বিতীয়ার্ধে (জানুয়ারী-জুন) মুদ্রানীতি ঘোষণা, ব্যাংকের তারল্য সংকট, প্রাক নির্বাচন পরিস্থিতি বিভিন্ন কারণে বাজার চিত্র কিছুটা পাল্টে যেতে থাকে। কমতে থাকে লেনদেন ও সূচক। শেয়ারবাজার অত্যন্ত সংবেদনশীল ও স্পর্শকাতর। যে কোনো ধরণের কর্মকান্ডই শেয়ারবাজারকে মারাত্মক প্রভাবিত করে, আর সেই সাথে প্রভাবিত হয় দেশের অর্থনীতি ও সাধারণ বিনিয়োগকারী। বাংলাদেশের শেয়ারবাজার একটি অগ্রসরমান ও সম্ভাবনাময় খাত। এই সম্ভাবনাময় খাতকে বিশেষ গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে সরকার শেয়ারবাজারে নীতি সহায়তা দেয়ার উ্যদ্যোগ নেয়। তারই অংশ হিসেবে ব্যাংক খাতের তারল্য সংকট কাটাতে নগদ জমা সংরক্ষনের হার কমানো, সরকারী আমানতের ৫০ শতাংশ বেসরকারী ব্যাংকে রাখার ঘোষণা এবং ব্যাংকের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার ঘোষণাসহ ইতিবাচক বিভিন্ন পদক্ষেপে বাজার স্বাভাবিক ধারায় ফিরে আসে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেড জাতিসংঘের সাসটেইন্যাবল স্টক এক্সচেঞ্জের উদ্যোগে যুক্ত হতে একটি প্রতিশ্রুতি পত্রে স্বাক্ষর করেছে। এই উদ্যোগ বিশ্বের ৭৫টি স্টক এক্সচেঞ্জকে একত্রিত করেছে যারা তথ্য আদান-প্রদান এবং শেয়ারবাজারের স্থিতিশীলতা ও স্বচ্ছতার উন্নয়নে স্টেকহোল্ডারগণের সাথে কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এই সহযোগিতা বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ও দক্ষ ইএসজি (এনভাইরনমেন্টাল, সোস্যাল ও করপোরেট গভর্ণেন্স) প্রতিবেদন আসার সুযোগ তৈরি করবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত