প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চাকরিতে শতকরা ৩০ভাগ কোটা বাস্তবায়নের দাবি আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের

রফিক আহমেদ : আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এর সভাপতি মো. সাজ্জাদ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান শাহীন বলেছেন, চাকরি পরীক্ষার শুরু বা প্রিলিমিনারী থেকে শতকরা ৩০ ভাগ কোটা বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন। সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য বিশেষ সুবিধা রাখাই প্রমাণ করে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই এদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের আশা-আকাঙ্খার শেষ আশ্রয়স্থল। বৃহস্পতিবার এক যৌথ বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় এসব কথা বলেন।

‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃদ্বয় সংসদে বিরোধী দলের নেতার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, গত বুধবার জাতীয় সংসদে বাজেট আলোচনায় অংশ নিয়ে বিরোধী দলের নেতা বেগম রওশন এরশাদের ‘মুক্তিযোদ্ধা কোটা কমানো যাবে না’ তার এ বক্তব্য কোটার পক্ষে আন্দোলন কারীদের আরও উজ্জীবিত করেছে।

মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা তাদের ৬ দফা দাবি অবিলম্বে বাস্তবায়নের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান। দাবিগুলো হলো-এক. জাতির পিতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তিকারীদের শাস্তি দিতে হবে। দুই. বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাংবিধানিক স্বীকৃতি দিতে হবে। তিন. প্রিলিমিনারী থেকে কোটা শতভাগ বাস্তবায়ন করতে হবে। চার. মুক্তিযোদ্ধা কোটার শূন্য পদ সংরক্ষণ করে বিশেষ নিয়োগের মাধ্যমে পূরণ করতে হবে। পাঁচ. প্রশাসন থেকে রাজাকার ও তাদের বংশধরদের বের করতে চিরনী অভিযান পরিচালনা করতে হবে এবং ১৯৭২ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত শতকরা ৩০ভাগ মুক্তিযোদ্ধা কোটায় শূন্য পদগুলোতে চলতি বছরেই নিয়োগ দিতে হবে এবং কোটা বাস্তবায়ন হচ্ছে কিনা তা মনিটরিংয়ে একটি কমিশন গঠন করতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত