প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

‘দেশে বিচারহীনতার কারণে আদিবাসী নারীদের প্রতি সহিংসতা বেড়েই চলেছে’

রফিক আহমেদ : হিল উইমেন্স ফেডারেশন, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ ও বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক নামে তিনটি সংগঠনের নেতারা বলেছেন, দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে আদিবাসী নারীদের প্রতি সহিংসতা বেড়েই চলেছে। সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন কারণে আদিবাসী নারীর উপর সহিংসতার মাত্রা উদ্বেগজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। মূলত বিচারহীনতা সংস্কৃতির কারণে এধরনের ঘটনা বারংবার ঘটছে। দুঃখের বিষয় হলো, তবুও এ বিষয়ে আমরা প্রশাসনের পক্ষ্য থেকে কোন ইতিবাচক পদক্ষেপ লক্ষ্য করছি না।

বুধবার সকালে জাতীয় জাদুঘরের সামনে খাগড়াছড়িতে আদিবাসী কিশোরী গনধর্ষণ এবং লামায় ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদ ও ন্যায় বিচার দাবিতে মানববন্ধনে নেতারা এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক-এর সমন্বয়কারী ফাল্গুনী ত্রিপুরার সভাপতিত্বে এবং হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি মনিরা ত্রিপুরার সঞ্চালনায় মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করেন ঐক্য ন্যাপ-এর সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক খায়রুল চৌধুরী, আদিবাসী বিষয়ক সংসদীয় ককাসের টেকনোক্রেট সদস্য জান্নাত এ ফেরদৌসী, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের জাহিদ হাসান, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের জনা গোস্বামী, কাপেং ফাউন্ডেশন থেকে সোহেল হাজং, গণজাগরণ মঞ্চের নেত্রী লাকী আক্তার, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নিপুন ত্রিপুরাসহ এএলআরডি, ব্লাস্ট, আদিবাসী ফোরাম, গারো স্টুডেন্টস ফেডারেশন, মাদল ও অন্যান্য সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ।

মানববন্ধনের শুরুতে আয়োজকদের পক্ষ থেকে মূল বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের উপ-পরিচালক শাহনাজ সুমী।
শাহনাজ সুমী বলেন, গত ২১ জুন ২০১৮ খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ পার্কে একজন ত্রিপুরা আদিবাসী কিশোরী জোরপূর্বক ৮ জন সেটেলার যুবক দ¦ারা গণধর্ষণের শিকার হয়। ঐদিনই পুলিশ এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কয়েকজনকে আটক করে যার মধ্যে ৪ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে এবং বাকিরা পলাতক রয়েছে। আদালত আসামীদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করে জেল হাজতে প্রেরণ করার নির্দেশ দিয়েছে।

অপরদিকে গত ১৭ জুন রবিবার বান্দরবানের লামায় নিজ বাড়িতে এক আদিবাসী মারমা (১৯)তরুণীর লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহতের পরিবারের অভিযোগ, নিজ বাড়িতে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে এই তরুণীকে। নিহতের আত্মীয়দের অভিযোগ, ধর্ষণের পরে তাকে বালিশ চাপা দিয়ে মারা হয়েছে। কারণ তার গলায় ছোপ ছোপ কালো দাগ আছে এবং মেয়ের গায়ের কাপড় খোলা ছিল এবং তার শরীরে ধর্ষণের আলামতও দেখা গিয়েছে।

সঞ্জীব দ্রং বলেন, আদিবাসী মানুষের ওপর এতো মানবাধিকার লঙ্ঘণের ঘটনা ঘটছে কিন্তু রাষ্ট্র কোন উদ্যোগ গ্রহণ করছে না। রাষ্ট্র মানবাধিকার লঙ্ঘণের এ বিষয়গুলো দেখেও না দেখার ভান করছে কিংবা রাষ্ট্র এ পাহাড়ি আদিবাসী মানুষদের দেখতে পায় না। কোন সুষ্ঠবিচার না হওয়ার ফলে দেশে সহিসংসতার ঘটনা বেড়েই চলছে।

লাকী আক্তার বলেন, রাষ্ট্র নারীর প্রতি সহিংসতা ঘটনার বিচারে ব্যর্থ হয়েছে। বরং তারা আরো সহিংসতাকারীদের সাহায্য করছে। তিনি সহিংসতা প্রতিরোধে এক সংঘবদ্ধ সংগ্রামের আহ্বান জানান। বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক-এর সমন্বয়কারী ফাল্গুনী ত্রিপুরা মানববন্ধনের সমাপনী বক্তব্যে খাগড়াছড়িতে আদিবাসী কিশোরী গনধর্ষণ এবং লামায় ধর্ষণের পর হত্যার সুষ্ঠু বিচারের জন্য পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়কে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত