প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বুরকিনির পর এবার কি নিষিদ্ধ হবে ফেসকিনি!

নূর মাজিদ: কোন আহামরি কারুকার্যম-িত শৈল্পিক উদ্ভাবন নয় ফেসকিনি, নয় স্বল্পবসনা হবার চতুর ডিজাইন, ২০১২ সালে চীনের উদ্ভাবিত ফেসকিনি’কে সাধারণ বাংলায় বরং কাপড়ের তৈরি মুখোশ বললেই অনেকটা সঠিক হয়। এই মুখোশ থাইল্যান্ড, চীন, জাপান, ফিলিপাইন সহ এশিয় প্যাসিফিক অঞ্চলে নারীদের মাঝে খুব স্বল্প সময়ের মাঝেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। কারণ তারা বিশ্বাস করেন সৌন্দর্য এবং আভিজাত্য বজায় ধরে রাখতে হলে চেহারায় ফ্যাকাশে সাদা চামড়া থাকা উচিৎ।

‘একজন নারীর সব সময় ফর্সা ত্বক থাকা উচিৎ, নাহলে লোকে আপনাকে সাধারণ কৃষক ভাববে’ এমনটাই বলেন চীনা নারী শো ফিন শুয়ে। ২০১৬ সালে তিনি চীনের কিংদাও শহরের নিকটবর্তী এক সমুদ্র সৈকতে স্নানের সময় নিউইয়র্ক টাইমসের এক সাংবাদিক জো মুর তিনি এমন কথা বলেন। ঐ সাংবাদিক এশিয় নারীদের একটি নতুন ফ্যাশন ট্রে- নিয়ে সংবাদ সংগ্রহে এসেছিলেন। শো ফিনের মতো অনেক চীনা নারীকেই সেদিন কিংদাও এর সৈকতে বিকিনির সঙ্গে মানানসই রঙের আঁটসাঁট ফেসকিনি পড়তে দেখেন জো মুর। এটি যেন অনেকটা হিজাব আর মুখঢাকা নেকাবের হাইব্রিড সংমিশ্রণ।

তবে আজকের দুনিয়ায় বিশ্ব যেমন চীনকে দিয়ে শুরু হয় আবার চীনে এসেই শুরু হয়, তাতে চীনের এই ফ্যাশন উদ্ভাবন পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে পড়তে বেশি সময় লাগেনি। বিশেষ করে, ইউরোপের নারীদের অনেকেই বিকিনির সাথে ফেসকিনি পড়ার চল শুরু করেন। সুযোগে চীনারাও ইউরোপের বাজারে নিয়ে আসে নানা রকম ডিজাইনের অজ¯্র ফেসকিনি মুখোশ। তবে নারীদের নব্য ফ্যাশন ট্রেন্ড হিসেবে জনপ্রিয় হলেও ফেসকিনি নানা বিতর্কের জন্ম দিয়েছে।

বিশেষত, ২০১৬ সালেই সৈকতে মুসলিম নারীদের শরীর ঢাকার প্রয়োজনীয়তা থেকে উদ্ভাবিত বুরকিনিকে ফ্রান্সে নিষিদ্ধ করা হয়। দেশটির পুলিশ অত্যন্ত কঠোর হস্তে সৈকতে সৈকতে অভিযান চালিয়ে এই বুরকিনি ব্যান নিষিদ্ধ করা হয়। সেসময় ফরাসী সরকার জানায়, ফ্রান্সের উদার সমাজে এমন দেহ ঢেকে সৈকতে আসা তাদের সংস্কৃতি ও মূল্যবোধের একদম বিপরীত। এছাড়াও, সন্ত্রাসী হামলা চালানোর জন্য এমন পোশাক খুবই উপযোগী।

বর্তমান সময়ে ইউরোপে ফেসকিনির জনপ্রিয় হয়ে ওঠার প্রেক্ষিতে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, শরীর ঢাকা পোষাকে যদি সন্ত্রাসী হামলা চালানোর উপযোগী নয়, তবে পরিচয় ঢেকে রাখা মুখ ঢাকা পোশাক কেন নয়! অন্যদিকে, নিরাপত্তার প্রশ্ন তুলে অনেক ইউরোপিয় দেশেই ফেসকিনি নিষিদ্ধ করবার আলোচনা চলছে।ফলে, স্বাভাবিকভাবেই এবার কৌতূহল জাগে উদারবাদের কট্টর মৌলবাদী আচরণে কি এবার বুরকিনির মতো ফেসকিনিও নিষিদ্ধ হবে পশ্চিমে। নিউইয়র্ক টাইমস/ দ্যা গার্ডিয়ান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ