প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মন খারাপ বিএনপির!

রবিন আকরাম : খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে হারের পর এবার গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও হেরেছে বিএনপি। এই দুই নগরিতে বিপুল ভোটে জয় পেয়েছে ক্ষমতাশীন দল আওয়ামী লীগ। এই হারকে কেন্দ্র করে বিএনপি নেতাদের মাঝে হতাশার ছাপ দেখা গেছে।

বিএনপি অভিযোগ করে আসছে, তাদের এজেন্টদের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। সমর্থকদের ভয়ভীতি দেখানোর পাশাপাশি মারধরও করা হয়েছে। জালভোট ও কারচুপির অভিযোগ এনে খুলনা নির্বাচনের মতো গাজীপুর নির্বাচনকেও প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে নির্বাচন বাতিল চেয়ে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানিয়ে বিএনপির নেতারা। তারা বলছে, সরকার ও নির্বাচন কমিশন (ইসি) মিলে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে তামাশা করেছে। সরকার নতুন নতুন রূপে ভোট ডাকাতির ফর্মুলা আবিষ্কার করছে, যাতে ফলাফল নিজেদের পক্ষে নিয়ে ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে পারে।

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে আজীবন ক্ষমতায় থাকার চেষ্টা করছে। তারা নির্বাচনব্যবস্থা ধ্বংস করে দিয়েছে। তিনি বলেন, সংবিধানের ১৫তম সংশোধনীর মাধ্যমে দলীয় সরকারের অধীনে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না। বারবার স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে নিজ দলের প্রার্থীর পক্ষে রায় ছিনিয়ে নিচ্ছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের অধীনে কখনো সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না। গাজীপুরের নির্বাচনের মাধ্যমে তারা আবার সেটি প্রমাণ করেছে।

ফখরুল আরো বলেন, এ অবস্থার মধ্যেও সিলেট, বরিশাল ও রাজশাহী সিটি নির্বাচনেও বিএনপি অংশ নেবে। এটি বিএনপির চলমান আন্দোলনের অংশ, যার মাধ্যমে জনগণের সামনে বর্তমান গণবিরোধী সরকারের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে। এর মাধ্যমে জনগণের সামনে সরকার ও ইসির চরিত্র বের হয়ে আসবে।

এদিকে অওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলছেন, গাজীপুরে সি‌টি ক‌র্পোরেশন নির্বাচ‌নের মাধ্য‌মে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের জবাব দিয়েছে গাজীপুরবাসী।

তি‌নি ব‌লেন, বিএনপি-জামায়াতের নালিশ জনগণ গ্রহণ করেনি। গাজীপুর নিয়ে আন্দোলন করে দেখুক জনগণ সাড়া দেয় কিনা। দলটি দিন দিন জন বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বলে মন্তব্য করেন কাদের।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের বিজয়ের এই ধারা আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়ে কাদের ব‌লেন, গাজীপুরে নৌকার প্রার্থী জয় পাওয়ায় এলাকাবাসীকে ধন্যবাদ জানাই।

অন্যদিকে গাজীপুর নির্বাচনে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেছেন, গাজীপুরের নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। নিজস্ব পর্যবেক্ষক ও গণমাধ্যম প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমরা জানতে পেরেছি যে ভোটগ্রহণ উত্সবমুখর পরিবেশে শেষ হয়েছে।

এই সবকিছুই বিএনপির মন খারাপের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বারবার হেরে যাওয়ার বিএনপির নেতারা অনেকটাই হতাশায় ডুবে আছে। তাদের সামনে জাতীয় নির্বাচন ও আরো ৩টি সিটি নির্বাচন রয়েছে। একই সাথে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে বের করার চেষ্টাও চালিয়ে যাচ্ছে দলটির সিনিয়র নেতারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত