প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মিয়ানমারের ৭ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ইইউর নিষেধাজ্ঞা 

ডেস্ক রিপোর্ট: রোহিঙ্গা নির্যাতনের দায়ে অভিযুক্ত মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সাত কর্মকর্তার ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। যুক্তরাজ্যের নেতৃত্বে গৃহীত এ পদক্ষেপের পাশাপাশি তাদের সম্পত্তিও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। অভিযুক্ত কর্মকর্তারা মিয়ানমারের মুসলিমদের বিরুদ্ধে ‘কৌশলগত মানবাধিকার লঙ্ঘন’ করেছেন বলে মনে করে ইইউ। এর আগে মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র বিক্রি এবং দেশটির সেনাবাহিনীকে কোনো প্রকার প্রশিক্ষণ কিংবা সহযোগিতা দেয়া রহিত করে ইইউ। এদিকে ইইউর এ ঘোষণার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অভিযুক্ত সাত জনের অন্যতম রাখাইন অভিযানে নেতৃত্বদানকারী ‘রাখাইনের কসাই’ নামে কুখ্যাত মেজর জেনারেল মাউং মাউং সোয়েকে বরখাস্ত করেছে মিয়ানমার সেনাকর্তৃপক্ষ।

গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে ‘তাতমাদো’ নামে অভিহিত মিয়ানমার সেনাবাহিনী জানায়, জঙ্গি হামলা মোকাবেলায় অদক্ষতা প্রদর্শনের কারণে মাউং মাউং সোয়েকে বরখাস্ত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রণীত নিষেধাজ্ঞা তালিকাতেও নাম রয়েছে তার। ইইউর নিষেধাজ্ঞায় তালিকাভুক্ত পাঁচ সেনা কর্মকর্তা ছাড়াও আছেন বর্ডার গার্ড জেনারেল এবং পুলিশ বাহিনীর অধিনায়ক।

তাতমাদো জানায়, কর্তব্যপালনে ত্রুটির দায়ে আউং কোয়া জো নামে ডেপুটি মেজর জেনারেল পদমর্যাদার আরো এক সেনা কর্মকর্তাকেও ‘পদত্যাগের’ অনুমতি দেয়া হয়েছে। তবে এ বিবৃতিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপের সঙ্গে এর কোনো প্রকার সংশ্লিষ্টতার কথা উল্লেখ করেনি।

যুক্তরাজ্যের বিদেশ ও কমনওয়েলথ দপ্তরের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মার্ক ফিল্ড বলেন, এটি মিয়ানমার সেনাবাহিনীর জন্য একটি সতর্কবার্তা। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় নজর রাখছে। আমরা সন্দেহজনক ব্যক্তিদের চিহ্নিত করছি। নিষেধাজ্ঞা আরোপে মামলা দায়েরের জন্য প্রয়োজনীয় প্রমাণ সংগ্রহ করা হচ্ছে। আমরা নির্যাতনের জন্য দায়ীদের খুঁজে বের করতে পারি এবং আমরা তা করব। আরো নাম যুক্ত হবে তালিকায়।

মার্ক ফিল্ড বলেন, রাখাইনে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাকে যুক্তরাজ্য সরকার ‘ভয়ঙ্কর’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে। সহিংসতার ঘটনায় তদন্ত কমিশন গঠনে মিয়ানমারের ঘোষণাকেও স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাজ্য। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মিয়ানমারের আংশিক গণতান্ত্রিক ধারায় ফেরার পথ সহজ করতে নিয়ন্ত্রণমূলক ব্যবস্থা শিথিল করেছিল যুক্তরাজ্য এবং ইইউ। কিন্তু মিয়ানমার সেনাবাহিনীর জাতিগত নিধনযজ্ঞের মুখে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়ার পর থেকে দেশটির ব্যাপারে কৌশলগত অবস্থান বদলে ফেলেছে ইইউ। সূত্র: ভোরের কাগজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত