প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাকিস্তানের নারী পাইলটের ছবি কেন ভাইরাল

ডেস্ক রিপোর্ট: পাহাড় আর উপত্যকার মধ্য দিয়ে যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ চালিয়ে ইন্টারনেট সেনসেশনে পরিণত হলেন পাকিস্তানের দুই নারী পাইলট। ওই উড়োজাহাজের সব ক্রু-ও ছিলেন নারী। পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনসের (পিআইএ) পক্ষ থেকে এক টুইট বার্তায় জানানো হয়, ক্যাপ্টেন মরিয়ম মাসুদ ও ফার্স্ট অফিসার সুমায়লা মাজহারের কারণে এ কাজ করা সম্ভব হয়েছে।

খালিজ টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, গিলগিট ও হাঞ্জা নদীর সংযোগস্থলে গড়ে ওঠা পাকিস্তানের শহর গিলগিট। একসময়ে সিল্ক রুটের প্রধান কেন্দ্র ছিল উত্তর পাকিস্তানের এই শহর। শহরের চারদিকে পাহাড়, মাঝে এক উপত্যকা। এর মধ্য পিআইএর প্রাণবন্ত দুজন কর্মী উড়োজাহাজ চালিয়ে অনন্য এক কাজ করেছেন। ২০ জুন গিলগিটে প্রথমবার যাত্রীবাহী উড়োজাহাজ পরিচালনা করলেন নারীরা। ক্যাপ্টেন মরিয়ম মাসুদ ও ফার্স্ট অফিসার সুমাইলা মাজহারসহ বিমানের ক্রু-ও ছিলেন সবাই নারী। পিআইএর উড়োজাহাজটি ইসলামাবাদ থেকে গিলগিট হয়ে আবারও রাজধানী শহরে ফিরে আসে কোনো রকম বাধা-বিপত্তি ছাড়াই।

প্রসঙ্গত, গিলগিট পৌঁছাতে ও বিমান অবতরণ করতে যে পাহাড়ি পথের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়, তা যে বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। আর তাই মরিয়মদের এ কাজকে অন্যতম কীর্তির স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। এ জন্য পিআইএর পক্ষ থেকে মরিয়ম মাসুদ ও সুমাইলা মাজহারের ছবিসহ একটি টুইট করা হয়েছে। সেই টুইটে অনেকেই কমেন্ট করেছেন। বলছেন, তাঁরাও চান বড় হয়ে তাঁদের মেয়ে এমন সম্মানজনক কাজ করুক। টুইট প্রকাশের পরই ৮ হাজার ৭০০ লাইক এবং এই টুইট নিয়ে ২ হাজার ৭০০ রিটুইট হয়েছে।

বেশ কয়েকজন যাত্রীও ওই টুইটে জানিয়েছেন মনের অনেক কথা। মেঘলা আকাশ থাকা সত্ত্বেও কীভাবে কোনো সমস্যা ছাড়াই সুন্দর ফ্লাইট ছিল তাঁদের। ধন্যবাদ জানিয়েছেন ক্যাপ্টেন মরিয়ম মাসুদকে। সূত্র: প্রথম আলো

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ