প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

গৃহকর্মী নিয়োগে নতুন নিয়ম চালু করলো আমিরাত

ডেস্ক রিপোর্ট: ক্লিনার, মালি, পাচক, প্রাইভেট টিচারসহ গৃহকর্মী নিয়োগে নতুন মূল্য ও প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। মঙ্গলবার দেশটির মানব সম্পদ ও অ্যামিরেটাইজেশন মন্ত্রণালয় গৃহকর্মী নিয়োগের জন্য নতুন চারটি প্যাকেজ ঘোষণা করেছে।

সরকারি কার্যালয়ের মাধ্যমে শ্রমিক নিয়োগের নতুন এই প্যাকেজ চারভাগে বিভক্ত। আমিরাতের সরকারি অফিস ও তদবির সেন্টারের মাধ্যমে যেসব পরিবার ও ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানে গৃহকর্মী ও শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হয় তাতে আগের চেয়ে এখন কম খরচ নির্ধারণ করেছে মন্ত্রণালয়।

প্রথম প্যাকেজে গৃহকর্মী, ক্লিনার, মালি, ড্রাইভার, পাচকসহ ব্যক্তিগত শিক্ষক বাইরের দেশ থেকে নিয়োগ দিতে পারবেন আগ্রহীরা। এসব খাতে বিদেশিদের নিয়োগের জন্য আলাদা আলাদা খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, প্রথম প্যাকেজভুক্ত খাতে ফিলিপিনো নিয়োগে খরচ হবে ১৪ হাজার দিরহাম। এছাড়া ইন্দোনেশীয় এবং শ্রীলঙ্কানদের ১৫ হাজার দিরহাম, ইথিওপীয়দের ৫ হাজার, কেনিয়া ও উগান্ডার সাড়ে ৬ হাজার, ভারতীয়দের ১২ হাজার ও বাংলাদেশিদের নিয়োগে ৭ হাজার ও নেপালিদের সাড়ে ১৪ হাজার দিরহাম ব্যয় হবে।

আরও পড়ুন : ওমানে ব্যাপক ধরপাকড়, ৩০০ নারী প্রবাসী গ্রেফতার

তবে প্রথম প্যাকেজভুক্ত খাতে নিয়োগের খরচ অন্যান্য প্যাকেজের চেয়ে বেশি। এছাড়াও প্রথম প্যাকেজে ভিসা ইস্যু, আবাসন ও মেডিকেল চেকআপের ফি পরিশোধ করতে হবে।

আমিরাতের গৃহকর্মীকল্যাণবিষয়ক সহকারী আন্ডারসেক্রেটারি খলিল এব্রাহীম খাওরি বলেন, গৃহকর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়া সহজ ও সস্তা করতে সহায়তা করবে তদবির সেন্টার। পাশাপাশি প্রত্যেক ছয়মাস পরপর নিয়োগের ব্যয় পর্যালোচনা করবে মন্ত্রণালয়।

দ্বিতীয় প্যাকেজের আওতায় স্বল্পমেয়াদে অথবা ছয় মাসের অস্থায়ী চুক্তির ভিত্তিতে যেসব পরিবার অথবা ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান গৃহকর্মী অথবা শ্রমিক নিয়োগ করে তাদের সহায়তা করা হবে। এই সময়ে শ্রমিকরা মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে থাকবে। ছয় মাস পর যদি উভয়পক্ষ রাজি হয় তাহলে সেসব পরিবার অথবা ব্যবসায়ী পৃষ্ঠপোষকের কাছে শ্রমিক হস্তান্তরে দীর্ঘমেয়াদি চুক্তি করতে হবে। এই চুক্তিতেও সহায়তা করা হবে।

শ্রমিক হস্তান্তর ফি, মাসিক বেতন, সব ধরনের লাইসেন্স, আইডি, মজুরি এবং অন্যান্য কাগজপত্রের ব্যয় তদবির সেন্টার থেকে নির্ধারণ করে দেয়া হবে। বাংলাদেশি কর্মী হস্তান্তরের ফি সাড়ে চার হাজার দিরহাম, ইথিওপিয়া, কেনিয়া ও উগান্ডার কর্মীদের সাড়ে ৩ হাজার দিরহাম এবং ভারত ও নেপালের কর্মীদের ৬ হাজার দিরহাম পরিশোধ করতে হবে।

আরও পড়ুন : সৈন্যরা পাপ করেছে আমি করিনি : মা হওয়ার পর ধর্ষিত রোহিঙ্গা নারী

দ্বিতীয় প্যাকেজের আওতায় বাংলাদেশি, কেনিয়ান, নেপালি ও ভারতীয় শ্রমিকদের জন্য মাসিক বেতন ২ হাজার ২৫০ দিরহাম নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া ফিলিপিনো ও ইন্দোনেশীয় শ্রমিকদের মাসিক বেতন নির্ধারণ করা হয়েছে আড়াই হাজার দিরহাম, শ্রীলঙ্কান শ্রমিকদের ২ হাজার ২০০ দিরহাম, ইথিওপীয় ও উগান্ডার শ্রমিকদের ২ হাজার ৩০০ দিরহাম।

ছয় মাস পর্যন্ত প্রত্যেক মাসে নির্ধারিত এ বেতন পরিশোধ করবেন নিয়োগদাতা।

শ্রমিকদের স্পন্সরশিপ যারা নিজেদের কাছে নিতে চান না তাদের জন্য তৃতীয় প্যাকেজ ঠিক করা হয়েছে। এই প্যাকেজের আওতায় শ্রমিক নিয়োগের ব্যয় ও বেতন প্রায় একই। তবে দেশ ভেদে বেতনে পার্থক্য হতে পারে।

চতুর্থ প্যাকেজ পার্ট টাইম অথবা নিয়োগদাতার চাহিদার ভিত্তিতে সবকিছু নির্ধারণ করা হবে। এতে ঘণ্টা, দৈনিক, সাপ্তাহিক অথবা মাসিক হিসেবে কর্মী নিয়োগ করতে পারবে নিয়োগদাতা পরিবার অথবা ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান।

তবে এই প্যাকেজের আওতায় চার ঘণ্টার জন্য একজন শ্রমিক ১২০ দিরহাম, ৮ ঘণ্টার জন্য ২০০ দিরহাম, সাতদিনের জন্য এক হাজার ১২০ দিরহাম এবং এক মাসের জন্য সাড়ে তিন হাজার দিরহাম পাবেন।

গৃহকর্মী নিয়োগের খরচ নির্ধারণের আগে দেশটির মানব সম্পদ ও অ্যামিরেটাইজেশন মন্ত্রণালয় দেশজুড়ে বিদেশি কর্মীদের ওপর মতামত জরিপ পরিচালনা করেছে। গৃহকর্মী নিয়োগের খরচ ৮ থেকে ১০ হাজার দিরহামের মধ্যে হলে যৌক্তিক হবে বলে মতামত দিয়েছেন বেশিরভাগ প্রবাসী শ্রমিক।

সূত্র : গালফ নিউজ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত