প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইসরাইল সফরে প্রিন্স উইলিয়াম, প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক

নূর মাজিদ : ব্রিটিশ রাজ পরিবারের সদস্য হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম ইসরাইল সফর করছেন ডিউক অব ক্যামব্রিজ প্রিন্স উইলিয়াম। তিনি ব্রিটিশ রাজ পরিবারের সব চাইতে জনপ্রিয় রাজবধু প্রিন্সেস ডায়ানার বড় সন্তান। ইসরাইলের ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে দেশটির জনগণ এবং তাদের রাষ্ট্রকে সম্মান জানাতেই তার এই আনুষ্ঠানিক সফর।

চারদিনের এই রাষ্ট্রীয় সফরের প্রথম দিনেই প্রিন্স উইলিয়াম জেরুজালেম গেছেন। মঙ্গলবার তিনি জেরুজালেমে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নাৎসিদের হাতে নিহত ইহুদিদের স্মরণে নির্মিত হলোকাস্ট মেমোরিয়ালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এসময় তিনি ঐ গনহত্যার নানা ঐতিহাসিক নিদর্শন ঘুরে ঘুরে দেখেন। নিহতদের জুতার সারি দেখে আবেগ আপ্লুত উইলিয়াম বলেন, ‘আমি এখনও এই গণহত্যার ভয়াবহতা অনুধাবনের চেস্টা করছি।’

এরপর তিনি সফরের পরবর্তী কর্মসূচী অনুযায়ী ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতিনিয়াহু এবং তার স্ত্রী সারা নেতিনিয়াহুর সঙ্গে তাদের রাষ্ট্রীয় বাসভবনে আতিথিয়তা গ্রহণ করেন। এরপর তিনি দেশটির প্রেসিডেন্ট রিউভেন রিভলিনের সঙ্গে রাষ্ট্রপতি ভবনে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকেও অংশগ্রহণ করেন।

তবে এবারই প্রথম কোন ব্রিটিশ রাজ পরিবার সদস্য ইসরাইল সফর করছেন বিষয়টি এমন নয়। ইতোপূর্বে তার বাবা প্রিন্স অব ওয়েলস চার্লস ইসরাইলি রাষ্ট্রনেতা আইজ্যাক রবিন এবং শিমন প্যারেজের শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ইসরাইল সফর করেন। তবে সেটি কোন আনুষ্ঠানিক সফর ছিলোনা। বিশেষ করে ব্রিটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশেই রাজ পরিবার কোন ইসরাইলে আনুষ্ঠানিক সফরে রাজকীয় ব্যক্তিদের পাঠানো বন্ধ রাখে। এই নিয়ে ইসরাইলের অনুযোগের প্রেক্ষিতেই ব্রিটেন দেশটির ৭০ বছর পূর্তির অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রিন্স উইলিয়ামের সফরসূচি ঘোষণা করেন।

ইসরাইলের বাম ঘরানার প্রভাবশালী পত্রিকা এই সফরের সমালোচনা করে বলেছে, এর মাধ্যমে ব্রিটিশ প্রশাসন ও রাজ-পরিবার নেতিনিয়াহু এবং ইসরাইলের মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়কে অগ্রাহ্য করেছে। বিশেষত যখন সাম্প্রতিক সময়ে ব্রিটেন থেকে ইসরাইলে অস্ত্র আমদানি পূর্বের সময়ের চাইতে বৃদ্ধি পেয়েছে। এপ্রিল মাসে যুক্তরাজ্যের দ্য গার্ডিয়ান জানায়, ইসরাইলে ব্রিটিশ অস্ত্র-রপ্তানির পরিমাণ রেকর্ড পরিমানে বৃদ্ধি পেয়েছে। দ্য গার্ডিয়ান/ হারেৎজ/ ডেইলি মেইল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ