প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাশিয়ার দোরগোড়ায় মার্কিন বিমানঘাঁটি তৈরি করছে পেন্টাগন

নূর মাজিদ: পূর্ব ইউরোপে রুশ সীমান্তের কাছে মার্কিন সেনা উপস্থিতি বাড়িয়ে চলেছে পেন্টাগন। রাশিয়ার হুমকি থেকে পূর্ব ইউরোপের সুরক্ষা দিতেই এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানায় পেন্টাগন। এই পদক্ষেপের আওতায় ঐ দেশগুলিতে নতুন বিমান ও সেনাঘাঁটি নির্মাণ করছে তারা। এছাড়াও সোভিয়েত আমলের পুরনো বিমানঘাঁটিগুলোকে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনীর ব্যবহারের উপযোগী হিসেবে গড়ে তোলার কাজও অব্যাহত রয়েছে।

এই সমস্ত কর্মসূচীর আওতায় ২০১৯ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রশাসন ৮২৮ মিলিয়ন ডলারের একটি বিশেষ বরাদ্দ দিয়েছে। আর এই বরাদ্দের অর্ধেকের বেশি অর্থ পাচ্ছে মার্কিন বিমানবাহিনী, যা নতুন বিমানঘাঁটি নির্মাণ এবং সোভিয়েত আমলের ঘাঁটিগুলোকে ন্যাটো দেশগুলোর ব্যবহার উপযোগী করে তলার কাজে ব্যয় করা হবে।

পেন্টাগনের এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘রুশ আগ্রাসণ মোকাবেলা এবং ইউরোপিয় মিত্রদের সুরক্ষা নিতেই এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।’

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের ইডিআই বা ইউরোপিয়ান ডিফেন্স ইনিশিয়েটিভের আওতায় পেন্টাগন ইতোমধ্যেই ২০১৯ সালে ৬.৫ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে। যা ২০১৮ সালে ছিলো ৪.৮ বিলিয়ন ডলার। এই অর্থের সিংহভাগ প্রাক্তন সোভিয়েতব্লক ভুক্ত দেশগুলো সামরিক সহায়তার আকারে পাচ্ছে। এবং এর সিংহভাগই যুক্তরাষ্ট্র থেকে অস্ত্র ক্রয় করা সহ সেনা ও বিমানঘাঁটি ব্যয় করা হচ্ছে। শুধুমাত্র ২০১৮ সালেই এই দেশগুলিতে নতুন স্থাপনা নির্মাণে ৩৩৮ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করে পেন্টাগন।

লাটভিয়া,এস্তোনিয়া, বুলগেরিয়া, রোমানিয়া, পোল্যান্ড, হাঙ্গেরি ও স্লোভেনিয়ার মতো নতুন ন্যাটো সদস্য দেশের সামরিক অবকাঠামো এই সমস্তে অর্থে ন্যাটোর মান অনুযায়ী পুনর্গঠনের কাজ চলছে। ডিফেন্স নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত