প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

শেখ হাসিনার জন্যই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে : কবরী

রফিক আহমেদ : বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য সারাহ বেগম কবরী বলেছেন, শেখ হাসিনার জন্যই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পরই যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে আন্দোলন শুরু হয়েছিল। জাহানারা ইমাম এই আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। আর এর চালিকাশক্তিই ছিল শেখ হাসিনা। তিনি জাহানারা ইমামকে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার জন্য সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেছিলেন।

মঙ্গলবার শহীদ জননী জাহারানা ইমামের ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট শাহবাগ থানা শাখার উদ্যোগে সেগুনবাগিচাস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে আলোচনা সভায় বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সারাহ বেগম কবরী বলেন, শেখ হাসিনা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসেছিলেন বলেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে। তিনি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় না এলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করার বাংলাদেশে কারো সাহস হতো না। ৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর যুদ্ধাপরাধীদের প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রী করা হয়েছিল। তাদের কেউ কিছুই করতে পারেনি। জননেত্রী শেখ হাসিনাই হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতীক। আজ অনেকেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে অনেক বড় বড় কথা বলেন। যখন শাহ আজিজুর রহমানকে প্রধানমন্ত্রী করা হয়েছিল অন্যদের মন্ত্রী-এমপি বানানো হয়েছিল তখন তারা কি করেছেন? শেখ হাসিনার নেতৃত্বের কারণে এখন বাংলাদেশ বিশ^ব্যাপী প্রশংসিত।

তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের জিয়া পুনর্বাসিত করেন। জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটায়। খালেদা-তারেকও একই কাজ করেছে। জিয়া-খালেদা-তারেক যুদ্ধাপরাধী, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের জনক। ১৯৭৫ সালের রক্তাক্ত অধ্যায়ের ভিতর দিয়ে নতুন করে জন্ম নেওয়া অপশক্তির রাজনৈতিক দল আজ অস্তিত্ব সংকটে। পতনকালে অপশক্তি সবসময় ধ্বংসের উন্মাদনায় মেতে উঠে। বিএনপি এখন একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। তারা বাংলাদেশের রাজনীতিতে ষড়যন্ত্র, লাও- পোড়াও এবং রাষ্ট্রকে অস্থিতিশীল করে বক্র পথে ক্ষমতার সিঁড়ি খোঁজার ষড়যন্ত্র করছে।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা দিলীপ সরকারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান, পীযুষ বন্দোপাধ্যায়, মোবারক আলী শিকদার, চিত্রনায়িকা ফারজানা আমিন নতুন, অরুন সরকার রানা, অভিনেত্রী অরুনা বিশ^াস, কবি রবীন্দ্র গোপ, মনোরঞ্জন ঘোষা ও, শাহ আলম প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত