প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘আহারে বেচারা, ক্ষমতা হারানোর এত ভয়’

রবিন আকরাম : বিএনপি-জামায়াত জঙ্গিরা একবার ক্ষমতার চাবিকাঠি হাতে পেলে সবকিছু থেমে যাবে, উল্টে যাবে। রক্তগঙ্গা বইয়ে দেবে বলে আশঙ্কা করছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। তার এই বক্তব্যে আমাদেরসময়.কম’র এক পাঠক বলছেন, আহারে বেচারা ক্ষমতা হারানোর এত ভয়।

সোমবার মেননের এই বক্তব্যের অনেক পাঠক ফেসবুক পেজ-এ তাদের মতামত জানিয়েছেন। তাদের মধ্য থেকে কয়েকজনের মতামত তুলে ধরা হলো।

মো. শাহজাহান লিখেছেন, রক্ত যখন ভাগ করে খাইছেন তখন তো খুব আরাম করে খাইছেন। আর এখন তার পাওনা পরিশোধ করবেন, বাঁচার কোন সুযোগ নাই।

কাইয়ুম প্রধান বলছেন, দালালেরা সব সময়ে ভয়ে থাকে। কখন কি হয় তা ভেবে ঘুম হারাম।

খন্দকার জামানের ভাষায়, স্বাভাবিক বিশ্বাসযোগ্য গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক পরিবেশ ও পরিস্থিতির সৃষ্টি করুন।

সাইদুর মুরসালিন লিখেছেন,পাপ করলে ভয় হয়? পাপ বাপকেও ছাড়ে না।

তারিন ওয়াহাব মনে করেন, এত উন্নয়ন করেছেন, তাহলে এত ভয় কিসের!

আসিফুর রহমান খান বলছেন, এখন কী বইছে ? বিরোধী মতের লোকের শরীরের রক্ত কি রক্ত না!

মো. সাদেক বেপারি লিখেছেন, আহারে বেচারা, ক্ষমতা হারানোর এত ভয়!

প্রসঙ্গত, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, আমরা এখন জল-স্থল-অন্তরীক্ষে ছুটে চলেছি, অর্থমন্ত্রীর ভাষায় ‘সমৃদ্ধ আগামী’র পথে। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত জঙ্গিরা একবার ক্ষমতার চাবিকাঠি হাতে পেলে সবকিছু থেমে যাবে, উল্টে যাবে। রক্তগঙ্গা বইয়ে দেবে তারা। তাদের ষড়যন্ত্র থেমে নেই। থেমে নেই ওহাবীবাদী-মওদুদীবাদীদের ষড়যন্ত্র। যা কিছু বাঙালির, যা কিছু বাঙলার তার বিরুদ্ধেই তাদের জেহাদ।

সোমবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি একথা বলেন।

মেনন বলেন, বিএনপি নির্বাচনে আসবে। গর্জন করবে, বর্ষাতে পারবে না। এতিমের টাকা কেবল নয়, আরও অন্যসব অপরাধের কারণেও বেগম জিয়ার মুক্তির আন্দোলন দূরে থাক, বিএনপির আহ্বানে কোনো আন্দোলনেই জনগণ মাঠে নামবে না। তা বলে আমাদের নিজের অন্যায়গুলোর বিষয়ে আমরা যেন চোখ বুজে না থাকি। বাড়ি-জমি-প্রতিষ্ঠান দখল, মানুষের সাথে অন্যায় আচরণ, টেন্ডারবাজি, চাকরি বাণিজ্য, ঘুষ , দুর্নীতি মানুষকে ত্যক্তবিরক্ত করে ফেলেছে। অসৎ ব্যবসায়ী, অসৎ আমলা, অসৎ রাজনীতিবিদের চক্র সব জায়গায় তৎপর। সুবচন ক্রমাগত নির্বাসনে। উন্নয়ন যেমন জনগণকে আস্থাশীল করে, তেমনি এ ধরনের আচরণ মানুষকে দূর সরিয়ে দেয়। আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধানমন্ত্রীও এই হুশিয়ারি জানিয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত