প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

পুঁজিবাজারকে সচল রাখতে চীনের নেয়া বৃহৎ উদ্যোগগুলো

নূর মাজিদ: যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য উত্তেজনার সময়ে বিশ্বের সবচাইতে বেশী ভারসাম্যহীন চীনা পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের আস্থা ধরে রাখতে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে চীনা কর্তৃপক্ষ।সাম্প্রতিক সময়ের এই পদক্ষেপগুলো পূর্বের যেকোন পুঁজিবাজার সঙ্কট এড়াতে নেয়া সিধান্তগুলোর চাইতেও অধিক বিস্তৃত। বিশেষ করে এই সপ্তাহেই চীনের পুঁজিবাজারের সঙ্কটে মোট ১.৮ ট্রিলিয়ন ডলারের শেয়ারের মূল্যপতনের পর দেশটির অর্থনৈতিক কতৃপক্ষ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছেন। তাদের বিশ্বাস এই সমস্ত পদক্ষেপ বিনিয়োগকারীদের মাঝে আস্থা ফিরিয়ে আনবে।

তবে চীনা সরকার যে সমস্ত পদক্ষেপগুলি নিয়েছেন তা অনেকের মতেই বাজারে সাময়িক হলেও আস্থা ফিরিয়ে আনার জন্য যথেষ্ট উদ্দীপক হিসেবে কাজ করবে। বিশেষত রোববার চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক অন্যান্য ব্যাংককে আমানতের পরিমাণ কমিয়ে বাজারে ঋণ সরবরাহ বাড়ানোর নির্দেশ দেয়। এরপরেই সাংহাই কম্পোজিট ইনডেক্সে স্বাভাবিক গতিতে দাম ওঠানামা শুরু হয়।

চীনা সরকার, কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং গণমাধ্যমের বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরিয়ে আনতে নেয়া পদক্ষেপগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্যগুলো এখানে তুলে ধরা হলো।

আমানতের পরিমাণ কমানো
রোববার চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক অন্যান্য ব্যাংককে তাদের মোট আমানতের পরিমাণ কমানোর নির্দেশ দেয়। এবং দেশটির ব্যবসায়ী এবং পুঁজি বাজারে বিনিয়োগকারীদের ৭০০ বিলিয়ন ইওয়ান বা ১০৮ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেবার নির্দেশ দেয়। চীনা অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞরা সরকারের এই পদক্ষেপকে সময়োচিত বলে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তারা জানান, বাণিজ্য যুদ্ধের শঙ্কায় থাকা পুঁজিবাজারে এই বাড়তি অর্থ বিনিয়োগ হলে মূল্যপতনের হার কমে আসবে।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রণ
গত সপ্তাহে চীনা কতৃপক্ষ দেশটির ব্রোকার হাউজগুলোকে ঘোষিত প্রাইমারি শেয়ার সেকেন্ডারি বাজারে ছারাও আগে সরকারি অনুমতি নেবার নির্দেশ দেয়। এই পদক্ষেপের মাধ্যমে বাজারে শেয়ারের সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি বাজারসূচক ধরে রাখতেই চাইছেন তারা। এর ফলে এখন পর্যন্ত তারা ৫ ট্রিলিয়ন ইউয়ানের শেয়ারের বাজারে আসার ব্যাপারটি নিয়ন্ত্রণ করছেন।

কম্পানিগুলোর নিজস্ব পদক্ষেপ
এছাড়াও বাজারমূল্য ধরে রাখতে চীনের বৃহৎ ১০১টি কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা কোম্পানিগুলোতে তাদের বিনিয়োগ বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ২০১৫ সালেও চীনা শেয়ার বাজারে মুল্যপতনের সময় তারা একই পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে থাকার প্রতিশ্রুতি
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্য উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে চীনের বাজারে যে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে তা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংক বা পিপলস ব্যাংক অব চায়নার গভর্নর ই গ্যাং বর্তমান পরিস্থিতিতে বিনিয়োগকারীদের ধৈর্যধারণ করে পরিস্থিতির গতিপ্রকৃতি বুঝে বিনিয়োগ করবার পরামর্শ দিয়েছেন। এসময় তিনি জানান, বিনিয়োগকারীদের জন্য যে কোন ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশ দূর করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ নেবে।

এছাড়াও চীনের গণমাধ্যম এবং সরকার গুজব রটানোর বিপক্ষে সচল রয়েছে। রয়টার্স/ ব্লুমবার্গ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত