প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গ্যাসের দাম বৃদ্ধিতে উৎপাদনখাতে নেতিবাচক প্রভাবের শঙ্কা

সাজিয়া আক্তার : বছর ঘুরতে না ঘুরতেই আবারো গ্যাসের দাম বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বিদ্যুৎ, সার উৎপাদনসহ বিভিন্ন খাতে গড়ে ৩০০ শতাংশ দাম বাড়ানোর সুপারিশ করেছে কর্ণফুলী গ্যাস কোম্পানি।

উদ্যোক্তারা বলছেন বিদ্যুতে লোডশেডিং, বন্দরে জট ও পরিবহন সংকটে এমনিতেই নাকাল চট্টগ্রামের শিল্প আর বাণিজ্য খাত। তার উপর গ্যাসের দাম বাড়ানো হলে নেতিবাচক প্রভাব পরবে উৎপাদন খাতে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে গ্যাসের দাম বাড়ায় সরকার, যার কার্যকর হয় মার্চ মাসে। এখন আবারো সেই দাম বাড়ানোর প্রক্রিয়া চলছে। তাতে চট্টগ্রামের গড়ে ৩০০ শতাংশ পর্যন্ত দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব করেছে ।

তাদের প্রস্তাব অনুযায়ী দাম বাড়বে না আবাসিক ও বাণিজ্যিক খাতে। তবে শিল্প খাতে প্রতি ঘনমিটার ৭ টাকা ৪২ পয়সা বাড়িয়ে প্রস্তাব করা হয়েছে ১২ টাকা ৮০ পয়সা পর্যন্ত। এছাড়া বিদ্যুৎ উৎপাদনে ৩ টাকা ১৬ পয়সা থেকে ১০ টাকা। সার উৎপাদনে ২ টাকা ৭১ পয়সা থেকে ১২ টাকা ৮০ পয়সা, সিএনজিতে ৩২ টাকা থেকে ৪০ টাকা, ক্যাপটিভ পাওয়ারে ৯টাকা ৬২ পয়সা থেকে ১৬ টাকা এবং চা বাগানে প্রস্তাব করা হয়েছে ৭টাকা ৪২ পয়সা ।

বাংলাদেশ স্টিল রি রোলিং মিল এসোসিয়েশনের সহ সভাপতি আনামুল হক ইকবাল বলেন, স্টিলের দাম কমার দিকে, আমরা আশা করছিলাম আরো কমবে। যেটা দেশের উন্নয়নের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু এখন গ্যাসের দাম যখন বেড়ে যাবে উৎপাদন খরচটা বৃদ্ধি পাবে।

বাংলাদেশ সিএনজি ফিলিং স্টেশন ওনার্স এসোসিয়েশন চট্টগ্রাম সভাপতি আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু বলেন, যে মূল্যে এলএনজি আমদানি করা হচ্ছে তার থেকে সিএনজি গ্যাসের দাম আমরা বেশি দিচ্ছি সরকারকে। গ্যাসের দাম বৃদ্ধি পেলে গণপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি পাবে, সিএনজির ভাড়া ও অন্যান্য সব ক্ষেত্রে ভাড়া বৃদ্ধি পাবে। ভাড়া বৃদ্ধি পেলে জনগণের দুর্ভোগ বৃদ্ধি পাবে।

এমনিতেই গ্যাস, বিদ্যুৎ সংকট আর বন্দরের জটের কারণে দেয়ালে পিট ঠেকে গেছে শিল্প খাত সংশ্লিষ্টদের । তার উপর কয়েকদিন পর পর দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত হবে বড় একটি ধাক্কা।

গ্যাস বিদ্যুতের দাম কিছুদিন পর পর না বাড়িয়ে কমপক্ষে ৫ বছর স্থির রাখার দাবি জানিয়েছেন উদ্যোক্তারা।

সূত্র : চ্যানেল ২৪ টেলিভিশন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত