প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গায়ের রঙ নিয়ে উপহাসের জেরে বিষ প্রয়োগ, ৫ জনের মৃত্যু

ডেস্ক রিপোর্ট : ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের এক নারীর গায়ের গাঢ় রঙ ও তার রান্নার ধরন নিয়ে উপহাসের জেরে প্রাণ দিতে হল চারটি শিশুসহ পাঁচ জনের।

আত্মীয়-স্বজনদের ক্রমাগত উপহাসে উত্যক্ত ২৮ বছর বয়সী ওই নারী খাবারে বিষ মিশিয়ে দেন বলে অভিযোগ, শনিবার এ খবর জানিয়েছে এনডিটিভি।

সোমবার মহারাষ্ট্র রাজ্যের রাইগাদ জেলার এ ঘটনায় ওই পরিবারের আরও ১২০ জন অতিথি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

দায়ের করা অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মাহাদ গ্রামের গৃহবধূ প্রজ্ঞা ‍সুরবাস তার আত্মীয় সুভাষ মানের বাড়িতে এক অনুষ্ঠানের সময় খাবারে কিটনাশক মিশিয়ে সেই খাবার অতিথিদের খেতে দেন। এমনকি শিশুরাও বাদ পড়েনি।

রাতের ওই খাবার খাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই লোকজন পেট ব্যথা হচ্ছে বলে জানায় এবং বমি করতে শুরু করে। এরপর একের পর এক বিভিন্ন জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া শুরু হয়।

এরপর পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ এসে জানতে পারে অসুস্থ হয়ে পড়া সবাই একই অনুষ্ঠানে খাবার খেয়েছেন। খাবারের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠালে সেখানে খাবারে কীটনাশকের উপস্থিতি ধরা পড়ে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তারা তদন্ত শুরু করে এবং সুভাষ মানের বাড়ির কাছে কীটনাশক খুঁজে পায়। পুলিশ সব অতিথির সঙ্গে কথা বলে, এ সময় প্রজ্ঞা সুরবাসের কথাবার্তা তাদের সন্দেহের উদ্রেক করে। তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে স্বীকার করে, অপমানের প্রতিশোধ নিতে সে খাবারে বিষ মিশিয়েছে।

তাকে গ্রেপ্তার করে তার বিরুদ্ধে হত্যা, হত্যা চেষ্টা ও অন্যান্য অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, দুই বছর আগে প্রজ্ঞার বিয়ে হয়েছিল, তারপর থেকে তাকে তার গাঢ় গাত্রবর্ণ ও রান্নার হাত না থাকার জন্য গঞ্জনা সহ্য করতে হচ্ছিল। এক সময় পরিবার ও স্বজনদের সবার বিরুদ্ধে তার মন বিষিয়ে ওঠে এবং সে তাদের সবাইকে হত্যার সিদ্ধান্ত নেয়।

এরপর আত্মীয় সুভাষ মানের বাড়িতে অনুষ্ঠানের দাওয়াতে গিয়ে তার সামনে সুযোগ আসে। সে খাবারে বিষ মিশায় এবং সেগুলো অতিথিদের বেড়ে খাওয়ায়।

যে চারটি শিশু মারা গেছে তাদের বয়স সাত থেকে ১৩ বছরের মধ্যে। এর পাশাপাশি ৫৩ বছর বয়সী আরেক ব্যক্তি মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা।

সূত্র : বিডিনিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত