প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘পাসপোর্ট পেতে হলে হিন্দু হয়ে যান’

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিয়ের ১২ বছর পর যে স্বামীর ধর্ম নিয়ে কোনো প্রশ্ন শুনতে হবে, এটা কল্পনাও করতে পারেননি উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের বাসিন্দা তন্বী শেঠ। মিসেস শেঠ টুইটারে অভিযোগ করেছেন যে লক্ষ্ণৌয়ের পাসপোর্ট সেবাকেন্দ্রে কর্মরত এক অফিসার সবার সামনে তাকে প্রশ্ন করেছেন বিয়ের পরেও কেন নিজের পদবি পরিবর্তন করেননি তিনি। স্বামীকেও ডেকে বলা হয়, পাসপোর্ট নবায়ন করতে হলে তাকে হিন্দুধর্মে ধর্মান্তরিত হতে হবে। গতকাল এ খবর জানায় বিবিসি।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে ট্যাগ করে পাঁচ ভাগে পোস্ট করা টুইটে মিসেস শেঠ লিখেছেন, তিনি আনাস সিদ্দিকিকে ১২ বছর আগে বিয়ে করেছেন। তাদের বছর ছয়েকের এক সন্তানও আছে। কিন্তু ভারতের বেশিরভাগ নারীই যেমন বিয়ের পরে পদবি বদল করে স্বামীর পদবি রাখেন, সেটা তিনি করেননি।

টুইটারে তন্বী লেখেন, একজন মুসলিমকে বিয়ে করেও কেন পদবি বদল করিনি, সে প্রশ্ন তুলে আমার পাসপোর্টের নবায়ন আটকে দেন বিকাশ মিশ্র নামের ওই অফিসার। সবার সামনে আমাকে অপমান তো করাই হয়, এমনকি আমার স্বামীকে ডেকে পাঠিয়ে বলা হয়, হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করলে তবেই পাসপোর্ট নবায়ন করা হবে। এ ঘটনায় ভারতের সংবাদমাধ্যমে বেশ সমালোচনা হচ্ছে। আমাদের সময়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত