প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

‘নিঃসন্দেহে মেসি বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়’

ডেস্ক রিপোর্ট : গোটা বিশ্বে চলছে বিশ্বকাপ ফুটবলের উন্মাদনা। বাংলাদেশও পিছিয়ে নেই সেই উন্মাদনা থেকে। বাড়ির ছাদে উড়ছে কিংবা বারান্দায় দুলছে সমর্থিত দলের পতাকা। পাড়ায় মহল্লায় বন্ধু আড্ডায় কিংবা চায়ের দোকানে চলছে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা নিয়ে বাকবিতণ্ডা। পরিবারের ভেতরেও উঠছে চায়ের কাপে ঝড়। বাবা মেসি তো সন্তান নেইমার কিংবা বড় সন্তান আর্জেন্টিনার সমর্থক আর ছোটটি ব্রাজিলের। জার্সির দোকানগুলোতেও কাটতি বেশ। হুমড়ি খেয়ে পড়ছে ক্রেতারা।

মাঠের চৌহদ্দি পেরিয়ে সমর্থনের এই উন্মাদনা সারা বিশ্বের সাধারণ মানুষ ছাড়াও ছড়িয়ে পড়েছে তারকাদের মধ্যে। দেশের চেনা তারকারা তাদের গায়ে জড়িয়েছেন নিজ নিজ সমর্থিত দলের জার্সি। ব্যাখ্যাও দিচ্ছেন দল সমর্থনের।
আর্জেন্টিনার সমর্থক অভিনেতা মামনুন হাসান ইমন। তিনি জানিয়েছেন তার আর্জেন্টিনা প্রীতির পেছনের কারণ। এ ছাড়াও আলাপে উঠে এসেছে মেসির কথাও।

প্রশ্ন : আপনি কেন আর্জেন্টিনার সমর্থক?
ইমন: আর্জেন্টিনা অনেক ভালো খেলে। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে যে ১৯৮৬-এ যখন আর্জেন্টিনা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, আমি তখন ততটা বুঝতাম না, অনেক ছোট ছিলাম। হয় না যে, পরিবারের বড় ভাইরা সাপোর্ট করে, এরপর যখন বড় হয়েছি, আর্জেন্টিনার খেলা দেখেছি, ছোট ছোট পাসে তারা খেলে, সুসংগঠিত খেলা। এরপর দেখলাম মেসি নামের এক জাদুকর ফুটবলার এলেন। নিঃসন্দেহে মেসি ওয়ার্ল্ডের সেরা খেলোয়াড়। তার খেলা দেখে মুগ্ধ হলাম। সর্বপোরি আর্জেন্টিনার টোটাল ফুটবলটাই আমার কাছে ভালো লাগে আরকি।
খেয়াল করলে দেখা যায় যে, আমরা যারা বড় হয়েছি অধিকাংশই ছোটবেলায় না বুঝে যে অন্ধ একটা সাপোর্ট করতাম, সেটাই রয়ে গেছে আসলে। বুঝে কিছু কেউ সাপোর্ট করেনি। সেই ভালোবাসা এখনো রয়ে গেছে আরকি। হয়তো ভবিষ্যতেও থাকবে, এ জন্য আর্জেন্টিনার সাপোর্ট করি আরকি।
অভিনেতা মামনুন হাসান ইমন।

প্রশ্ন : মেসি ছাড়া অন্য কোনো দলের কোনো প্লেয়ারকে কি আপনার ভালো লাগে?
ইমন: হ্যাঁ, মেসি ছাড়াও অন্য দেশের কিছু প্লেয়ারকে আমার ভালো লাগে। যেমন নেইমারের খেলা আমার ভালো লাগে। তিনি ব্রাজিলে খেললেও নেইমারের খেলা আমি পছন্দ করি।
প্রশ্ন : বাংলাদেশ ফুটবল দলের খেলা দেখা হয়?
ইমন: একটা সময় ফুটবল খেলা খুব দেখতাম। এখন তো বাংলাদেশ ফুটবলের সেই জমজমাট লিগটা আর নেই। একটা সময় আবাহনী ও মোহামেডান ছিল, তখন খুব দেখতাম। এখন ক্রিকেট জায়গাটা দখল করে নিয়েছে। তারপরও বলব যে বাংলাদেশের ফুটবল হয়তো আরও সামনে এগিয়ে যাবে, সেই দোয়া করি।
প্রশ্ন : ছোটবেলায় আপনি কি খেলাধুলা করতেন? ক্রিকেট অথবা ফুটবল?
ইমন: আমি দুইটাই খেলতাম। ছোটবেলায় টাইমপাসের জন্য দুইটাই খেলতাম। খুব ভালোই খেলতাম, খারাপ না।
প্রশ্ন : আপনি ফুটবলে কোন পজিশনে খেলতেন?
ইমন: আমি মিড ফিল্ডে খেলতাম। এ ছাড়াও স্ট্রাইকিং পজিশনে খেলতাম।
জেনে নিন কবে কবে খেলবে আর্জেন্টিনা
এবার প্রথম রাউন্ডে আর্জেন্টিনা খেলছে গ্রুপ ‘ডি’-তে। এ গ্রুপে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ আইসল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া, নাইজেরিয়া। আর্জেন্টিনা বনাম আইসল্যান্ডের খেলা হয়ে গেছে ১৬ জুন। এটি টিভি পর্দায় দেখা গেছে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায়। এ খেলায় আর্জেন্টিনা তাদের প্রতিপক্ষ আইসল্যান্ডের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে।
আর্জেন্টিনা বনাম ক্রোয়েশিয়ার খেলা ২১ জুন। এটি টিভি পর্দায় দেখা যাবে রাত ১২টায়। আর আর্জেন্টিনা বনাম নাইজেরিয়ার খেলা ২৬ জুন। টিভিতে প্রচার হবে সে দিন রাত ১০টায়। বাংলাদেশের নাগরিক টিভি, মাছরাঙা ও বিটিভিতে খেলা দেখা যাবে।
আর্জেন্টিনার রেকর্ড
আর্জেন্টিনা মোট চারবার ফিফা বিশ্বকাপে ফাইনাল খেলেছে। ১৯৭৮ সালে তারা নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৩–১ ব্যবধানে জয় লাভ করে বিশ্বকাপ শিরোপা জেতে। ১৯৮৬ সালে ম্যারাডোনার নেতৃত্বে পশ্চিম জার্মানিকে ৩–২ ব্যবধানে হারিয়ে তারা তাদের দ্বিতীয় বিশ্বকাপ শিরোপা জেতে। দলটি কোপা আমেরিকায় দারুণ সফল। তারা মোট চৌদ্দবার এই শিরোপা জিতেছে। ১৯৯২ সালে তারা ফিফা কনফেডারেশন্স কাপ শিরোপাও জয় করেছে তারা। এ ছাড়া ২০০৪ এথেন্স এবং ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিকে স্বর্ণপদকও জেতে আর্জেন্টিনা। সূত্র :  প্রিয়.কম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত