প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

পাকিস্তানে হাফিজ সাঈদের প্রার্থীর সংখ্যা ২৬৫

ইমরুল শাহেদ : আগামী ২৫ জুলাই পাকিস্তানে অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় ও প্রাদেশিক নির্বাচনে জামায়াত-উদ-দাওয়া থেকে যে ২৬৫ জন প্রার্থী দেওয়া হয়েছে তাদের মধ্যে মুম্বাই হামলার মূল পরিকল্পক হাফিজ সাঈদের ছেলে ও নাতিও রয়েছেন। নিষিদ্ধ ঘোষিত এই ফ্রন্টটি পাকিস্তানকে ইসলামের নগরদূর্গে পরিণত করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছে। হাফিজ সাঈদ নিজে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন না। সন্ত্রাসী কর্মকা-ের জন্য যুক্তরাষ্ট্র তার মাথার দাম ঘোষণা করেছে ১০ মিলিয়ন ডলার। ২০০৮ সালে সন্ত্রাসী গ্রুপ হিসেবে পরিচিত লস্করে তৈয়বা মুম্বাইতে হামলা চালিয়েছে। আর এই ফ্রন্ট থেকেই রাজনৈতিক দল মিল্লি মুসলিম লীগ (এমএমএল) গঠন করা হয়েছে।
পাকিস্তান নির্বাচন কমিশন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আপত্তির কারণে এমএমএলকে রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন দিতে অস্বীকার করে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, এই দলটির মধ্যে জামায়াত উদ দাওয়ার প্রতিচ্ছবি রয়েছে। এটির নেতৃত্বে রয়েছেন সাঈদ। কিন্তু জাতিসংঘের সিদ্ধান্ত-প্রস্তাবে হাফিজ সাঈদকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
নির্বাচন ঘনিয়ে আসার পর প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য প্ল্যাটফর্ম হিসেবে তারা আল্লা-হু-আকবর তেহরিককে বেছে নিয়েছেন। এই দলটির নাম নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত আছে। এমএমএল জানিয়েছে, তাদের সব প্রার্থির মনোনয়নপত্রই রিটার্নিং অফিসারের বাছাই প্রক্রিয়ায় টিকে গেছে।
এমএমএল কর্মকর্তারা বার্তা সংস্থা পিটিআইকে বলেছেন, ‘তাদের ২৬৫ জন প্রার্থীর মধ্যে ৮০ জন জাতীয় সংসদে এবং ১৮৫ জন প্রাদেশিক সংসদে প্রাথী হয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছেন হাফিজ সাঈদের পুত্র হাফিজ তালহা সাঈদ এবং নাতি হাফিজ খালিদ ওয়ালিদ। তাদের মনোনয়ন গৃহীত হয়েছে।’ টাইমস অব ইন্ডিয়া

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত