প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

যুক্তরাষ্ট্রের খামখেয়ালি বানিজ্যনীতি দেশটির কর্মীদের ক্ষতির কারণ হবে: চীন

নূর মাজিদ : চীনের বাণিজ্যমন্ত্রণালয় যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে বলেছে, দেশটির হঠকারী ও খামখেয়ালি ভরা বাণিজ্য যুদ্ধের নীতির কারণে মার্কিন কর্মী এবং শ্রমিকেরাই অধিক ক্ষতিগ্রস্থ হবে। এসময় মন্ত্রণালয়টি জানায়, সবার মাথার উপড়ে ছড়ি ঘোরানোর মার্কিননীতি এবার যুক্তরাষ্ট্রকেই আঘাত করবে।

বৃহস্পতিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গাও ফেং জানান, বাণিজ্য যুদ্ধ শুরু হবার পূর্বে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তারা একটি গঠনমূলক আলোচনায় বসেন। তবে আলোচনা শেষে যুক্তরাষ্ট্র হঠাৎ করেই বাণিজ্য শুল্কারোপের ঘোষণা দিয়ে বসে, ফলে বাধ্য হয়েই পাল্টা ব্যবস্থা নেয় চীন। চীনের কম্যুনিস্ট পার্টির প্রভাবশালী ইংরেজি দৈনিক গ্লোবাল টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে গাও ফেং এসব কথা বলেন।

সাম্প্রতিক সময়ে চীন যদি যুক্তরাষ্ট্রের পণ্যে পাল্টা শুল্কারোপ করে তবে চীনের ২০০ বিলিয়ন ডলারের পণ্যে আবারো ১০ শতাংশ বাড়তি শুল্ক দেবার হুমকি দিয়েছেন ট্রাম্প। তার দাবী, চীনা প্রতিষ্ঠানগুলো মার্কিন উদ্ভাবকদের মেধাসত্ব ভঙ্গ করে এবং মার্কিন প্রযুক্তি হস্তান্তর করতে চীনে ব্যবসা করা মার্কিন কোম্পানিগুলোর ওপর চাপ সৃষ্টি করে। পরবর্তীতে এই সমস্ত পণ্যই তারা যুক্তরাষ্ট্রে কমমুল্যে সরবরাহ করে মার্কিন অর্থনীতিকে ক্ষতিগ্রস্থ করে। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই প্রথম চীনের ওপর বাণিজ্য শুল্ক দেবার প্রস্তাব করেন ট্রাম্প।

তবে বেজিং বরাবরই এই সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। গ্লোবাল টাইমসকে গাও ফেং জানান, ফের যদি যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য শুল্ক দেবার পথেই হাঁটে তবে তার জবাব দেবার জন্য আমাদের হাতে পর্যাপ্ত পন্থা তৈরি আছে। এমনকি ডাও জোন্স পুঁজিবাজারে নিবন্ধিত মার্কিন শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে চীন। ব্রহস্পতিবারে গ্লোবাল টাইমসের প্রতিবেদনে এই বিষয়টির ওপর জোর দিয়ে বলা হয়, এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কর্মসংস্থানের পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্থ কর্মীদের জীবনযাপনের মান কমে যাবে।

তবে হোয়াইট হাউজে ট্র্যাম্পের শীর্ষ বাণিজ্য উপদেষ্টা পিটার ন্যাভার্রো চীনকে একটি আগ্রাসী সামরিক এবং অর্থনৈতিক শক্তি হিসেবেই বিবেচনা করেন। মঙ্গলবার ন্যাভার্রো বলেন, ‘আমাদের অর্থনীতির মূল চালিকা শক্তিগুলোকে সুরক্ষা দিতে ট্রাম্প সময়মতো উপযুক্ত পদক্ষেপ নিয়েছেন।’ এসময় তিনি আরো বলেন, বাণিজ্য যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের চাইতে চীনের হারাবার মতো অনেক কিছুই রয়েছে। রয়টার্স

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত