প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাতির আয়না-জানলা যেন রুদ্ধ না হয়

অজয় দাশগুপ্ত, সিডনি, অস্ট্রেলিয়া : প্রকাশনা শিল্প যেকোনো জাতির দর্পণ। একথা বলি না সবাই, সে নিয়ম বা আইন মেনে চলেন। সমস্যা হলো আমাদের দেশে কোনো কিছুই নিয়মে চলে না। একটা সময় ছিল যখন একনায়কদের শাসনে দেশে কিছু বলাই যেত না। এরশাদ আমলে সে সমস্যা প্রকটতর হওয়ায় আমরা সবাই কমবেশি ভুগেছি। একটি মাত্র রাষ্ট্রীয় টিভি আর রেডিও দিনমান তার প্রশংসা আর গুণগানে এমন হাল করেছিল মানুষ বিরক্তির চরম সীমায় পৌঁছে গিয়েছিল। এরশাদ যাওয়ার পর আমরা ধরে নিলাম গণতন্ত্র এসে গেছে। ফলে স্বাধীন ভাবেই মন খুলে কথা বলা যাবে। যাওয়া শুরু হলো বটে, তবে সত্যিকার স্বাধীনভাবে বলা গেল না। তারপরও বাধা পেরিয়ে ধীরে ধীরে মাথা তুলল দেশের মিডিয়া। এখন তো এমন কয়টা চ্যানেল আর কয়টা প্রিন্ট মিডিয়া জানাও মুশকিল। মিডিয়ার এই রমরমা সময়েও আসলে কি আমরা স্বাধীন ভাবে সব বলতে পারি? না পারা যায় ?

সরকারকে দোষারোপ করার আগে আমার দেশের কথা ভাবুন। সরকার বিরোধিতার নামে দেশ ও ইতিহাসের বিরোধিতা, ধর্মের নামে উত্তেজনার নামে দেশের বারোটা বাজিয়ে জাতিকে শেষ করার চক্রান্ত বা প্রচার কি মিডিয়ার কাজ? তাই এই জাতীয় মিডিয়া বন্ধ করে দেওয়াটাই ছিল যৌক্তিক। আবার এখন দেখছি সুযোপ পেলেই সরকার বিরোধিতার নামে দেশ ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী প্রচারণা। ইতিহাস ও অসাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে যারা মিডিয়াকে ব্যবহার করে দেশ ও সমাজের শান্তি নষ্ট করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়াই যৌক্তিক। কিন্তু বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন পোর্টাল বিডিনিউজ ২৪ ডটকম কেন সে খপ্পরে পড়ল? আবার বাধানিষেধ উঠেও গেল। এর কারণ কি আমরা জানতে পারব? এ কারণেই আমাদের মনে হচ্ছে কোথায় কি হচ্ছে, কেন হচ্ছে, কারা করছে, কেন করছে সেটা আসলে পরিষ্কার না। আমাদের সমাজে ঘোলা পানিতে মৎস্য শিকার একটা পুরনো রোগ। এই ফাঁদে পড়ে বহু প্রগতিশীল দেশ দরদী মিডিয়া ও মানুষের সর্বনাশ হয়ে গেছে। আখেরে এর ফল ভোগ করতে হয় সবাইকে। বঙ্গবন্ধুর আমল থেকে আজ অবদি এই প্রক্রিয়া থামেনি। কে কাকে, কেন টার্গেট করছে সেটা বোঝা না গেলে সরকারের লোকসান ব্যতীত লাভ হবে না।

আমরা মিডিয়ার কাছে যেমন দায়িত্বশীল আচরণ আশা করি, তেমনি চাই অকারণে কাউকে যেন টার্গেট করা না হয়। এখন সময় যদি হয়তো সামনে যাওয়ার সবাইকে বলার সুযোগ দিতে হবে। দেশ এগোচ্ছে, সমাজ এগোচ্ছে আর মানুষ কেন পিছিয়ে থাকবে? মিডিয়ার ভালোমন্দ বোঝার শক্তি আমজনতার ভালোই আছে। তাদের বিশ্বাস ও রুচির ওপর আস্থা রাখা দরকার। জোর করে কাউকে গলা চিপে বা স্তব্ধ করে কেউ কোনোকালে ভালো ফল পায়নি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় বলেন তারা প্রতিশোধের রাজনীতি করেন না। সেটাই আমরা বিশ্বাস করি। বিডিনিউজ ২৪ ডটকম বা অন্যান্য জননন্দিত মিডিয়ার ওপর যেন অকারণ খড়গ নেমে না আসে। আয়না হারিয়ে গেলে মানুষ বা জাতি তার নিজের চেহারাও ঠিকভাবে দেখতে পায় না। ত্রুটি ধরা পড়লে সেটা সারিয়ে না নিলে আয়না ভেঙে লাভ নাই। এটাই মনে রাখা দরকার।

লেখক : কলামিস্ট ও বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত