প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আত্মগোপনে রাজশাহীর মাদক ব্যবসায়ীরা

হ্যাপী আক্তার : রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলাতেই রয়েছে শতাধিক প্রভাবশালী মাদক ব্যবসায়ী। কোটি কোটি টাকার মালিক হলেও এক সময় এদের অনেকেই ছিল চা আর ডিম বিক্রেতা, আবার কেউ কেউ ছিল দিনমজুর কিংবা রাখাল। সম্প্রতি মাদকবিরোধী অভিযান শুরুর পর এদের অনেকেই গোপনে ভারতে পাড়ি জমিয়েছে।

গোদাগাড়ীর মাটিকাটা এলাকার বিলাসবহুল একটি বাড়িটির মালিক শরিফুল মেম্বার। তবে গত ১৫ দিন ধরে তিনি রয়েছেন আত্মগোপনে। শুধু শরিফুল মেম্বার নন, মাদক বিরোধী অভিযান শুরুর পর থেকে এখানকার শতাধিক কোটিপতি মাদক ব্যবসায়ী গা ঢাকা দিয়েছেন।

চরের চা বিক্রেতা থেকে কোটিপতি বনে যাওয়া শরিফুল মেম্বার একাধিক মামলার আসামি। তার বাড়িতে গিয়ে কাউকেই পাওয়া যায়নি। তবে পথ আটকে দাঁড়ান তারই শ্যালক রফিকুল ইসলাম। বাড়ির ছবি মুছে ফেলার জন্য ফোনে চাপ দেন শরিফুল মেম্বার।

শ্যালক রফিকুল ইসলাম বলেছেন, তার বাড়ি ভিডিও করবেন অবশ্যই তার একটা মতামত নেওয়া উচিত।

গোদাগাড়ীর মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে রয়েছে সেতাবুর রহমান বাবু, আব্দুর রহিম টিপু, মঙ্গলা, ওবায়দুল, জিয়াউর রহমান রুবেলসহ আরও অনেকে।

গোদাগাড়ীর কসাইপাড়ার জিয়াউর রহমান রুবেলের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় সেখানেও তালা ঝুলছে। স্থানীয়রা জানান, মাদক ব্যবসা করে রুবেল এখন কোটিপতি। থানায় তার নামে হেরোইনের বিক্রির অভিযোগে মামলাও আছে। তবে তার স্বজনদের দাবি রুবেল গরুর ব্যবসা করেন।

শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীদের কেউ কেউ এরই মধ্যে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে চলে গেছে বলেও এলাকাবাসী জানায়।

রাজশাহী গোদাগাড়ী পৌরসভার মেয়র মনিরুল  ইসলাম বাবু বলেছেন, তারা এলাকায় কেউ নেই। সবাই আত্মগোপনে চলে গেছে। পাসপোর্ট করে ভারত বা অন্য দেশে চলে গেছে। আবার অনেকেই দেশেই আত্মগোপন করে আছে।

এদিকে পুলিশ বলছে, মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

রাজশাহী গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন,   গডফাদার বা যারা শীর্ষ বাদক ব্যবসায়ী তারা গা ঢাকা দিয়েছে। গোপনভাবে তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। মাদক বিরোধী অবিযান অব্যহত রাখা হচ্ছে।

তবে এলাকাবাসী জানান, মাদক বিরোধী অভিযান থেকে প্রাণ বাঁচতে মাদক ব্যবসায়ীরা এখন নিরাপদ এলাকায় সরে গেছে। অভিযান বন্ধ হলেই তারা আবারো মাদক ব্যবসায় ফিরে আসবে বলে আশঙ্কা করছেন তারা। সূত্র : ডিবিসি নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত