প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঐতিহাসিক বৈঠকের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তগুলো (ভিডিও)

সান্দ্রা নন্দিনী: যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যকার বৈরী সম্পর্ক স্বাভাবিক করার উদ্দেশ্যে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জং উনের মধ্যে ঐতিহাসিক বৈঠক শুরু হয়েছে। উত্তর কোরিয়ার পরমাণুশক্তি নিরস্ত্রিকরণ সংক্রান্ত এক ঐতিহাসিক বৈঠকের জন্য সিঙ্গাপুরের অবকাশযাপন দ্বীপ সেনতোসার কাপেলা হোটেলে একত্রিত হন দুইদেশের শীর্ষনেতাসহ প্রতিনিধিরা।

বাংলাদেশ সময় ০৭:০০টায় এই বৈঠকের জন্য সময় নির্ধারিত ছিল।

বৈঠকের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তগুলো:

০৭:০৫ মিনিট: এক ঐতিহাসিক মুহূর্ত: বৈঠকের পূর্ব মুহুর্তের কিম জং উন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প পরষ্পরের সাথে হাসিমুখে করমর্দন করেন। চরম বৈরিভাবাপন্ন এই দুই দেশের প্রেসিডেন্টের করমর্দন পৃথিবীর জন্য কী বার্তা দেয় তাই এখন সবাই দেখার অপেক্ষায়।

৭:০৯ প্রেস ব্রিফিং-এর জন্য কিম জং উন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প পাশাপাশি বসেন।

৭:১০ মিনিট: উত্তর কোরিয়া বিষয়ক সংবাদ পরিবেশনকারী ওয়েবসাইট এনকে নিউজ তাদের টুইটার বার্তায় জানায়, কিম জং উন বলেন, আজকে আমরা যেখানে পৌঁছেছি সেটা সহজ ছিল না।

৭:১২ খুব সংক্ষিপ্ত সংবাদ সম্মেলন শেষ করেই দুই দেশের প্রেসিডেন্ট বৈঠকের জন্য চলে যান। তাদের দু’জনের মধ্যে আন্তরিকতা দেখা গেলেও খুব বেশি ঘনিষ্ট বন্ধুভাবাপন্ন আচরণ মনে হয় নি। যেমনটা দেখা গিয়েছিল কিম ও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন-জায়ে’র সাথে।

৭:১৬ এদিকে টেলিভিশনে দুই দেশের প্রেসিডেন্টের এই করমর্দনের দৃশ্য দেখে সিঙ্গাপুরে অবস্থানকৃত কোরিয়ার কমিউনিটির মানুষদেরকে হাততালি দিতে দেখা যায়।

৭:২৩ কিম জং উন ও ডোনাল্ড ট্রাম্পকে কাপেলার লাইব্রেরিতে ঢোকার উদ্দেশ্যে হাঁটতে দেখা যায়। সেখানেই দুই নেতা তাদের ব্যক্তিগত বৈঠক সম্পন্ন করবেন।

৭:২৪ এটা আমার জন্য সম্মানজনক: ট্রাম্প।

০৮:০২ উপদেষ্টাদের সঙ্গে নিয়ে বৈঠকের পরবর্তী অংশ আবার শুরু করার আগে কিম ও ট্রাম্প দু’জনের মধ্যে প্রায় ৩৫ মিনিট ধরে ব্যক্তিগত আলাপ করেন।

০৮:০৪ কিম ও ট্রাম্পের মধ্যকার বৈঠকের প্রথম অংশ ৪৮ মিনিট পর শেষ হয়। এরপর দুই নেতা বৈঠক থেকে বের হয়ে স্বল্প সময়ের জন্য হাঁটতে বের হন।

৯:২৩ ট্রাম্প বলছেন, ‘বৈঠক খুবই খবই ভাল হয়েছে’, কিম বলেন, ‘শান্তির পক্ষে প্রস্তাব’।

৯:৪১ ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জন উন মধ্যাহ্ন ভোজ খেতে বসেন।

১০:১০ ট্রাম্প, কিম এবং তাদের সঙ্গীরা সবুজ ও সাদা ফুল পরিবেশিত একটি সাদা দীর্ঘ টেবিলে দুপুরের খাবার খান। দুইপক্ষের প্রতিনিধিরা মুখোমুখি বসেন।

সংক্ষিপ্ত এই সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প বলেন, ‘আমার সত্যিই খুব ভাল লাগছে। আমরা একটি চমৎকার আলোচনার জন্য বসতে যাচ্ছি এবং এর ব্যাপক সাফল্য আশা করছি। এটি খুবই ফলপ্রসু হবে। এটি আমার জন্য সম্মানজনক এবং আমার কোনো সন্দেহ নেই যে আমাদের মধ্যে দারুণ এক সম্পর্ক তৈরি হবে।’

কিম জং উন বলেন, ‘আসলে এখানে পৌঁছানো খুব সহজ ছিল না। অতীত…এবং পুরনো ধ্যান-ধারণা ও চর্চাগুলো আমাদের মধ্যে প্রতিবন্ধকতা হিসেবে কাজ করেছে। কিন্তু আমরা এই সকল কিছুই কাটিয়ে উঠতে পেরেছি এবং আজ আমরা এখানে।’ রয়টার্স

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ