প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বাড়িয়ে পাসের হার বাড়ালে চলবে না

শাহরিয়ার কবির : যদিও দেখানো হচ্ছে, শিক্ষাখাতে সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে, কিন্তু সংস্কৃতিখাতের যে বাজেট তা অত্যন্ত দু:খজনকভাবে কম। আমাদের মাথায় পুরো  বিষয়টি রাখতে হবে যে, এই সরকারকে আমরা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সরকার মনে করি এবং আওয়ামী লীগের নেত্রীত্বে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু সরকারই আমাদের দেশের সংবিধান গঠন করেছিলো। বাংলাদেশের রূপ রেখায়, বাংলাদেশ কোন দিকে যাবে, সে কিন্তু ৭২ সালেই বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে¡ আওয়ামী লীগ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের যে প্রতিফলন ঘটেছে ৭২ সালে, সেখানে শিক্ষানীতির কথা বলা হয়েছে।

সেই শিক্ষানীতির কথা আমাদের সংবিধানেও উল্লেখ আছে এবং সেই ক্ষেত্রে এর কোনো প্রতিফলন দেখছি না। আমাদের বক্তব্য হচ্ছে, শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বাড়িয়ে পাশের হার বাড়ালে চলবে না। আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে- আগামীর বাংলাদেশ পরিচালনা করবে যারা, তারা প্রকৃত শিক্ষিত হচ্ছে কি না! এ দিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। সে ব্যাপারে সরকারের শিক্ষানীতির ব্যাপারে কোনো বাস্তাবায়ন বা প্রতিফলনই দেখছি না।

শেখ হাসিনা সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো যে, অধ্যাপক কবির চৌধুরি শিক্ষা কমিশন গঠন করা হবে কিন্তু  হেফাজতসহ অন্যান্য মৌলবাদীদের আপত্তির কারণে তা আর বাস্তবায়ন হয়ে উঠেনি। আমাদের শিক্ষাকে একমুখী করতে না পারলেও মাদ্রাসা শিক্ষাকে যুগোপযোগী করতে আমাদের অসুবিধাটা কোথায়! বিশেষকরে কওমি মাদ্রাসাকে আধুনিক করা হচ্ছে না। কাওমি মাদ্রাসাকে মৌলবাদীদের হাতে জিম্মি করে রেখেছে।

পরিচিতি : সভাপতি, ঘাতক দালাল নিমূল কমিটি/ মতামত গ্রহণ : তাওসিফ মাইমুন/ সম্পাদনা : জাফরুল আলম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ