প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নোয়াখালীতে যুবকের হাত কেটে বিচ্ছিন্ন করলো সন্ত্রাসীরা

অহিদ উদ্দিন মুকুল, নোয়াখালী: নোয়াখালী সদর উপজেলার কালাদরাপ ইউনিয়নে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুবকের হাত কেটে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে স্থাানীয় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় থানায় মামলা করতে গেলে প্রাণে হত্যার হুমকি দেওয়ায় ঘটনার ৪ দিনেও মামলা করতে পারেনি আহতের পরিবারের সদস্যরা। শুধু তাই নয়, সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের মহড়ায় ওই পরিবারের লোকজন বাড়ি থেকেও বের হতে পারছে না।

স্থানীয় সুত্র জানায়, গত রোববার দুপুরে উপজেলার মান্দারতলী গ্রামের শেফালী বেগমের পুত্র অটোরিক্সা চালক জাহাঙ্গীর হোসেন রুবেলের অটোরিক্সায় চড়ে একই এলাকার সিরাজ মিয়ার পুত্র মন্সুর হোসেন পার্শবর্তী খলিফারহাট যায়। সেখানে অটোরিক্সার ভাড়া নিয়ে উভয়ের মধ্যে ভাগবিতন্ডা ও চড়-থাপ্পরের ঘটনা ঘটে। পরে বিকালে মন্সুর এলাকায় আসলে রুবেলের মামাতো ভাই স্থানীয় আবুল কাশেমের পুত্র মাসুদ আলম ও সবুজ বিষয়টি জানতে চাইলে মন্সুর উত্তেজিত হয়ে তার চাচাতো ভাই তাহের ও বকুল মাঝিকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে তাহের ও বকুল মাঝি দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র সহ একদল সন্ত্রাসীকে সাথে নিয়ে মান্দারতলী ডাল ব্যাপারী আবুল কাশেমের বাড়িতে গিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা চালিয়ে কুপিয়ে মাসুদ আলমের হাতের কব্জি বিচ্ছিন্ন করে ফেলে দেয়। সন্ত্রাসীদের হামলায় সবুজ ও রুবেল সহ বাড়ির একাধিক ব্যক্তি গুরত্বর আহত হয়।

এসময় স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মহড়া দিয়ে চলে যায়। পরে এলাকাবাসী গুরত্বর আহত অবস্থায় মাসুদ আলমসহ অন্যান্য আহতদের উদ্বার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, হামলায় আহতদের চিকিৎসা চলছে।

সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠনো হয়েছে। আহতদের চিকিৎসা চলছে, এখনো ভোক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোন লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়নি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত