প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কমছে ধূমপান, তবে তামাক এখনো বড় ঘাতক: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

লিহান লিমা: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) জানায়, বিশ্বজুড়ে ধূমপায়ীর হার কমলেও আশঙ্কাজনকভাবে বেড়েছে তামাকগ্রহণকারীর সংখ্যা। বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে হু এই তথ্য জানায়।
হু’র প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিবছর হার্ট এটাক ও স্ট্রোকের মত হৃদরোগজনিত রোগের শিকার হয়ে ৩০ লাখ মানুষ অপরিণত বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

হু এর ননকমিউনিকেবল ডিজিস বিভাগের নির্বাহী ডগলাস ব্যাচার বলেন, তামাক প্রতিবছর ৭০ লাখ মানুষের মৃত্যুর কারণ এবং অনেকেই জানে যে, এটি ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। তবে বেশিরভাগ পরিণত বয়সী মানুষই বিশ্বাস করেন না যে ধূমপান স্ট্রোক এর কারণ। বিশেষ করে ভারত এবং চীনের অনেক তামাক ব্যবহারকারীই তাদের মৃত্যুঝুঁকি, হৃদরোগ ও স্ট্রোকের বিষয়ে অসচেতন। চীনে ৭৩ ভাগ ভারতের ৬১ভাগ নাগরিক মনে করেন না যে, ধূমপান হার্ট এটাকের ঝুঁকি বাড়ায়। আমাদের লক্ষ্য এই অসচেতনতার হার কমিয়ে আনা। এই বিষয়ে সচেতনতামূলক প্রচারণা বাড়াতে হবে।

হু এর প্রতিবেদনে দেখা যায়, বিশ্বজুড়ে চীন এবং ভারতে ধূমপায়ীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। চীনে ৩০ কোটি ৭০ লাখ এবং ভারতে ১০ কোটি ৬০ লাখ ধূমপায়ী। বিশ্বজুড়ে পরিণত বয়সী ধূমপায়ীর সংখ্যা ১১০ কোটি। বিশ্বজুড়ে তামাক গ্রহণকারীর সংখ্যা ৩০ কোটি ৬৭ লাখ। যেখানে ভারতে তামাক গ্রহণকারীর সংখ্যা ২০ কোটি।

হু জানায়, ২০০৫ সালে একটি ঐতিহাসিক চুক্তিতে বিশ্বের ১৮০টি দেশ তামাকের বিজ্ঞাপন এবং পৃষ্ঠপোষকতা নিষিদ্ধের পক্ষে স্বাক্ষর করে। এর ব্যবহার অনুৎসাহিত করতে কর আরোপ করা হয়। ব্যাচার বলেন, ২০০০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত এই বিশ্ব তামাক গ্রহণের হার ২৭ থেকে ২০ ভাগে নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে। শিল্পোন্নোত দেশগুলো উন্নয়নশীল দেশগুলোর চাইতে এ ক্ষেত্রে উন্নতি করেছে। একমাত্র দেশ হিসেবে আমেরিকা ২০১৫ সালের মধ্যে তামাক গ্রহণের হার ৩০ ভাগ কমানোর পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে। তবে নিন্ম এবং মধ্য আয়ের দেশগুলোতে তামাক কোম্পানিগুলোর প্রতিপত্তি মোকাবেলা করা একটি বড় চ্যালেঞ্জ। রয়টার্স।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ