প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বদির অভিযোগ প্রশাসনের ষড়যন্ত্রেই তালিকায় তার নাম

হ্যাপী আক্তার : মাদকবিরোধী অভিযান শুরুর পর থেকেই আলোচনায় রয়েছে কক্সবাজারের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি।  তার বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের মদদ দেয়ার অভিযোগ অনেক পুরনো। এছাড়া মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের তালিকায় তার নাম একেবারে শীর্ষে।  যদিও সব অভিযোগ উঠার প্রথম থেকেই সব অস্বীকার করে আসছেন আওয়ামী লীগের এই সাংসদ। এখন তিনি অভিযোগ করছেন, মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করতে গিয়ে প্রশাসনের ষড়যন্ত্রে মাদক ব্যবসায়ী ও পৃষ্ঠপোষকদের তালিকায় তার নাম দেওয়া হয়েছে।

বেসরকারি একটি টেলিভিশন চ্যানেল ডিবিসি নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি এ অভিযোগ করেন।

আব্দুর রহমান বদি বলেন, ইয়াবা কারবারিদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে মাদক ব্যবসায় সহায়তা করছে কক্সবাজারের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও কিছু সাংবাদিকরা। তাঁরা নিজেরা একটা সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছেন বলে অভিযোগ করেন বদি।

বদি চ্যালেঞ্জ করে বলেন, ‘বাংলাদেশের সমস্ত গোয়েন্দা সংস্থা, সাংবাদিকদের বলেছি, আপনাদের কাছে যদি কোন তথ্য প্রমাণ থাকে তাহলে আপনারা প্রধানমন্ত্রী মাননীয় শেখ হাসিনার কাছে জমা দেন তিনি ব্যবস্থা নেবেন।’

এসময় বদি আরো অভিযোগ করেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কোন অফিস টেকনাফে ছিল না, এটি ছিলো কক্সবাজার ও রামুতে। রামু থেকে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কিছু কর্মকর্তা টেকনাফে নিয়ে চাঁদাবাজি করত। কিন্তু তাদের চাঁদাবাজিতে আমি প্রতিরোধ করার কারণেই কর্মকর্তারা গোপনে মাদক ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতাকারীদের সঙ্গে আমরা নাম সম্পৃক্ত করে বদনাম ছড়াচ্ছে।

এদিকে সম্প্রতি বদির দেশ ত্যাগের গুঞ্জন উঠা প্রসঙ্গ বদি উড়িয়ে দিয়ে জানান, ওমরাহ করতে সৌদি আরব যাচ্ছেন। ফিরবেন ঈদের দিন। সূত্র: যমুনা টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত