প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশ হেফাজতে তৃতীয়লিঙ্গ অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু

সান্দ্রা নন্দিনী: যুক্তরাষ্ট্রের ইমিগ্রেশন এন্ড কাস্টমস ইনফোর্সমেন্ট-আইসিই এজেন্সির বিরুদ্ধে ‘হত্যা’র অভিযোগ এনেছে দেশটির মানবাধিকারকর্মীরা। দেশটির পুলিশি হেফাজতে তৃতীয়লিঙ্গের একজন অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ অভিযোগ তোলা হয়।

গত ৯ মে মধ্য-আমেরিকা থেকে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের ক্যারাভ্যানে মেক্সিকো সীমান্তে আসেন হন্ডুরাসের নাগরিক ৩৩বছর বয়স্ক রেক্সোনা হারনান্দেজ। এরপর তিনি ক্যালিফোর্নিয়া সীমান্ত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের জন্য আবেদন করলে তা বাতিল করা হয়। তাকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের করে দিতে আটক করা হয়।

মার্কিন ইমিগ্রেশন এন্ড কাস্টমস ইনফোর্সমেন্ট-আইসিই এজেন্সি জানায়, মার্কিন সীমান্তে পৌঁছে আশ্রয়প্রার্থনা করলে, হারনান্দেজকে আটক করা হয়। কেননা, তার বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে চুরি, পতিতাবৃত্তি ও অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অভিযোগ ছিলো।

আইসিই এজেন্সি পক্ষ থেকে জানানো হয়, এইডস আক্রান্ত  হারনান্দেজ গত ২৫ মে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান। উল্লেখ্য, গত আটমাসে ষষ্ঠতম ব্যক্তি যিনি অভিবাসী হিসেবে আটক অবস্থায় মারা গিয়েছেন।

অভিবাসীদের অধিকার নিয়ে কাজ করা তিন সংস্থা ‘পুয়েব্লো সিন ফ্রন্টেরাস’, ‘আল অট্রো লাদো’ ও ‘ডাইভারসিডাড সিন ফ্রন্টেরাস’র এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, হারনান্দেজ যুক্তরাষ্ট্রে একটি ঝুঁকি, হয়রানি ও হুমকিমুক্ত জীবন যাপন করতে চেয়েছিলেন। তবে, মার্কিন অভিবাসন কর্তৃপক্ষের চরম চিকিৎসা অবহেলায় মারা গিয়েছেন হারনান্দেজ। তাই বলা যায়, যুক্তরাষ্ট্রই হত্যা করেছে তাকে। বিবিসি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত