প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এবার এক রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১৪

ডেস্ক রিপোর্ট : মাদকবিরোধী সাঁড়াশি অভিযানে পুলিশ ও র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক রাতেই ১৪ মাদক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। গত ৪ঠা জুন থেকে চলমান অভিযানে এক রাতে এটাই সর্বোচ্চ মৃত্যুর ঘটনা। এর মধ্যে রাজধানীর ভাষানটেকে এক ‘অভিযানে’ই ৩ মাদক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া মাগুরায় ৩, চট্টগ্রাম ও যশোরে ২ জন করে ৪ এবং কুমিল্লা, নড়াইল, সিরাজগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গায় ১ জন করে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে অভিযানের ২৭ দিনে মৃত্যু হয়েছে ১৩৩ জনের।

ভাষানটেক থানার দেওয়ানপাড়া লোহার ব্রিজে মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে র‌্যাব সদস্যদের ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয়েছে বলে জানানো হয়।

মঙ্গলবার দিবাগত তিনটার দিকে র‌্যাব-৪ এর সদস্যদের সঙ্গে গুলিবিনিময়ের ঘটনাটি ঘটে বলে দাবি তাদের। র?্যাবের দাবি, নিহত ৩ ব্যক্তিই মাদক ব্যবসায়ী। তারা দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করে আসছিল। ওরা হলেন মাদক ব্যবসায়ী আতাউর রহমান ওরফে আতা (৪৬) ফারুক ইসলাম ওরফে বাপ্পি (৩৭) এবং মোস্তফা হাওলাদার ওরফে কসাই মোস্তফা (৫২)। নিহত আতা সাভারের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন।

র্যাব গণমাধ্যমকে জানায়, মাদকবিরোধী অভিযান চলায় আতা সাভার থেকে পালিয়ে ভাষানটেক এলাকায় অবস্থান নেয়। র?্যাব-৪ এর সদস্যরা মঙ্গলবার রাত তিনটার দিকে অভিযান চালায়। তিন ঘণ্টা পর্যন্ত উভয়ের মধ্যে গোলাগুলি চলে। একপর্যায়ে তারা আহত হন। র‌্যাবের সহকারী পুলিশ সুপার সোলায়মান এবং কর্পোরাল মাজহারুল ইসলাম তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ভোর ছয়টার দিকে তাদের মৃত ঘোষণা করেন। পরে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখা থেকে মুঠোফোনে পাঠানো এক খুদেবার্তায় গণমাধ্যমকর্মীদের বিষয়টি জানানো হয়। র?্যাব-৪-এর অধিনায়ক ডিআইজি লুৎফুল কবীর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ১৮ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট, ২টি বিদেশি পিস্তল ও ২টি বিদেশি মদের ক্যান পাওয়া গেছে। এছাড়া আতার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ২ ডজনের বেশি মামলা রয়েছে বলে জানানো হয়।

যশোর থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, যশোরের শার্শা উপজেলার বেনাপোলে বন্দুকযুদ্ধে ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। নিহতরা হচ্ছেন বেনাপোলের ভবের বেড় গ্রামের মাজহারুল ইসলামের ছেলে লিটন হোসেন (৩৫) ও বাগ আচড়া গ্রামের ইসারত আলীর ছেলে রবিউল ইসলাম (৪০)। পুলিশের দাবি, নিহত ২ জনই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও তাদের নামে বেনাপাল পোর্ট থানাসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। তবে তাদের স্বজনদের দাবি নিহতরা নির্দোষ। পুলিশ তাদের বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে গুলি করে হত্যা করেছে। বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি অপূর্ব হাসান বলেন, ‘গত রাত ৩টার দিকে সীমান্তবর্তী বড়আঁচড়া গ্রামে দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গুলিবিনিময় হচ্ছে বলে খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুটি লাশ উদ্ধার করা হয়।

কুমিল্লা থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, কুমিল্লায় মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে রোছমত আলী নামের এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে জেলার বুড়িচং উপজেলার লড়িবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত মাদক ব্যবসায়ী ওই উপজেলার ছয়গ্রাম এলাকার মৃত আলী আহাম্মদের ছেলে। অভিযানের সময় থানার এসআই মোয়াজ্জেম, এএসআই সহিদ ও কনস্টেবল আল আমিন আহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১ রাউন্ড কার্তুজসহ একটি পাইপগান ও ৪০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে। নিহত রোছমত আলী (৪০) একজন তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী এবং তার বিরুদ্ধে থানায় ৭টি মাদকের মামলা রয়েছে। এসব তথ্য জানিয়েছেন বুড়িচং থানার ওসি মনোজ কুমার দে।

নড়াইল জেলা প্রতিনিধি জানান, নড়াইল-লোহাগড়া সড়কের মালিবাগ মোড়ে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী’ সজিব শেখ (৩০) নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সজিব সদর উপজেলার দত্তপাড়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আলতাফ শেখের ছেলে। ঘটনাস্থল থেকে ১টি রিভলবার ও ২ রাউন্ড গুলি, ২টি রামদা, ১টি ছ্যানদা এবং ২১৩টি ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে মাদক ব্যবসায়ীরা নড়াইলের মালিবাগ মোড়ে অবস্থান করছে। পুলিশের অভিযানে সন্ত্রাসীদের গুলির জবাবে পুলিশও গুলি ছোড়ে। তাতে ঘটনাস্থলে এক মাদক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়।

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি জানান, এবার গুলিবিদ্ধ দুই মাদক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। রাজিব (২৭) নামে গুলিবিদ্ধ এক যুবকের লাশ চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ছোট দারোগাহাট এলাকায় কৃষি জমি থেকে গতকাল সকালে উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় তার পাশ থেকে দুই হাজার ইয়াবাও উদ্ধার করা হয়।

আর মোহাম্মদ ইসহাক ওরফে ওমর ফারুক (৪০) নামে অপর এক মাদক ব্যবসায়ীর লাশ চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার টাইগার পাস পলোগ্রাউন্ড মাঠ এলাকা থেকে মঙ্গলবার রাতে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৪ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট, ১টি ওয়ান শুটার গান, ৫ রাউন্ড গুলি ও ৫টি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়। র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক মিমতানুর রহমান জানান, গুলিবিদ্ধ ইসহাককে রাত পৌনে দুইটার দিকে চমেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বিরুদ্ধে নগরীর বিভিন্ন থানায় ১৯টি মামলা রয়েছে। সে কোতোয়ালি থানার ঝাউতলা কলোনির মোহাম্মদ আলীর ছেলে। সে একজন কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী বলে জানায় র‌্যাব।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) মোজাম্মেল হক জানান, বুধবার সকালে সীতাকুণ্ডের ছোট দারোগাহাট এলাকায় কৃষি জমিতে একটি লাশ পড়ে থাকেতে দেখে এলাকা লোকজন খবর দেয়। হয়তো মাদক ব্যবসার ভাগাভাগি নিয়ে নিজেদের মধ্যে বিরোধে প্রতিপক্ষের গুলিতে সে নিহত হয়েছে। তার মাথায় এবং বুকে একাধিক গুলি করা হয়েছে। নিহত রাজীব সম্প্রতি ত্রিপুরা পল্লীর দুই কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামি বলে জানান তিনি।

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, কামারখন্দে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আশান হাবিব (৪৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ১টি ওয়ান শুটার গান, ১ রাউন্ড গুলি, ১ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট ও ২০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। গতকাল ভোরে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম মহাসড়কের ঝাঐল ওভার ব্রিজের পাশে একটি ইউক্যালিপটাস গাছের বাগানে ভিতরে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে র‌্যাব-১২ সিরাজগঞ্জ ক্যাম্পের কমান্ডার মো. সাকিবুল ইসলাম খান প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান। নিহত আশান হাবিব কামারখন্দ উপজেলার কামারখন্দ হাটপাড়া গ্রামের ইজার উদ্দিনের ছেলে।

মাগুরা প্রতিনিধি জানান, শহরতলির বাটিকাডাঙ্গা মাঠপাড়া এলাকা থেকে মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে ৩ মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে সদর থানা পুলিশ। ওসি ইলিয়াস হোসেন জানান, রাত ১টার দিকে টহল পুলিশ গোলাগুলির সংবাদ পেয়ে বাটিকাডাঙ্গা মাঠপাড়া এলাকায় গিয়ে তিনজনের লাশ পায়। ঘটনাস্থল থেকে ৩২০ গ্রাম হেরোইন, ১ কেজি গাঁজা, ৬ বোতল ফেনসিডিল, ৬টি রাইফেলের গুলি ও ৮টি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি জানান, জেলা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে তানজিল হোসেন (৩০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা শহরতলির সাতগাড়ী এলাকার মাঠে মঙ্গলবার দিনগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে ১টি ওয়ান শুটারগান, ৪ রাউন্ড গুলি ও ১ বস্তা ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি করেন চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন খান। সূত্র : মানবজমিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত