প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্যস্ত সময় পার করছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পাদুকা কারিগররা

তৌহিদুর রহমান নিটল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে রাত-দিন ব্যস্ত সময় পার করছেন ব্রাক্ষণবাড়িয়ার পাদুকা কারিগররা আর এতে করে জমজমাট হয়ে উঠেছে এখানকার পাদুকা বাজার। এক হিসাবে এ শিল্পে জেলার বিভিন্ন স্থানে এই কাজে নিয়োজিত আছেন প্রায় ১০ হাজার শ্রমিক। এখন জেলার বেশির ভাগ কারখানায় দিনরাত ব্যস্ত সময় পার করছে তারা।  নিদ্রা হারা হয়ে পড়েছেন অনেক পাদুকা কারিগররা।

সারা বছরের বিশেষ এই সময়ে বাজারে অতিরিক্ত চাহিদা মেটাতে কারিগরা দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছে। পণ্যের গুণগতমান ও টেকসই ভাল হওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পাদুকা নিজস্ব স্বকীয়তা লাভ করেছে সারাদেশে। পাদুকা শিল্পীদের মতে, ঈদে ভোক্তাদের চাহিদা অনুযায়ী জুতা সরবরাহ করার মাধ্যমে তারাও ভাগ করে নিতে চায় ঈদের আনন্দ।

স্বাধীনতার পরপরই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পাদুকা শিল্পের যাত্রা শুরু। ক্রমান্বয়ে জেলা সদরের গণ্ডি পেরিয়ে সবকটি উপজেলায় তা ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে জেলা শহরে ৬৩ টি আর সব মিলিয়ে সমস্ত জেলায় ছোট-বড় অন্তত ৩ শতাধিক পাদুকা তৈরীর কারখানা রয়েছে। এসব কারখানায় কাজ করছে প্রায় দশ সহস্রাধিক শ্রমিক। ঈদকে সামনে রেখে শেষ সময়ে প্রতিদিন প্রায় আট/দশ হাজার জোড়া পাদুকা উৎপাদিত হচ্ছে।

উৎপাদিত জুতা তাৎক্ষণিক সরবরাহ দেয়া হচ্ছে পাইকারদের কাছে। কুমিল্লা, সিলেট, নোয়াখালী, চট্রগ্রাম, বগুড়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের পাইকাররা নিয়ে যাচ্ছে এসব পাদুকা । বাহারি ডিজাইন, গুনগত মান এবং দাম তুলনামূলক কম হওয়ায় দারুণ চাহিদা এখানকার পাদুকার।

কাজের ব্যস্ততা নিয়ে জানতে চাইলে একাধিক পাদুকা কারখানার মালিক বলেন, সারা বছরের তুলনায় ঈদে আমাদের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। এ সময়ে উৎপাদনও কয়েকগুন বেড়ে যায় ।তবে এবছর অন্য বছরের চেয়ে জুতোর পাইকারি বাজারে বেচাকেনা অনেক ভাল।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পাদুকা শিল্প মালিক সমিতির সভাপতি কাজী শফি উদ্দিন বলেন, সরকারী পৃষ্ঠাপোষকতা পেলে এ শিল্পকে আন্তর্জাতিক বাজারে পৌছে দেয়া সম্ভব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত