প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘ইয়াবা না পেয়ে সন্ধ্যার পর মদ খাচ্ছি’

সুশান্ত সাহা : চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে বহুল প্রচলিত ইয়াবা এখন সোনার হরিণ। কোথাও পাওয়া গেলেও তা চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে আসক্ত যারা,তারা এখন দিগ্বিদিক ছুটোছুটি করেও ইয়াবা সংগ্রহ করতে পারছে না। বর্তমানে তারা এখন ইয়াবা না পেয়ে অনেকেই মদ্যপানে ঝুঁকছেন। ফলে রাজধানীর বারগুলোতে এই রোজার দিনেও জমজমাট বেচাকেনা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, ইয়াবা ক’দিন আগেও মুড়ি মুড়কির মত রাজধানীর অলিগলিতে বিক্রি হত। ইয়াবা ব্যবসায়ীরা সংশ্লিষ্ট আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ম্যানেজ করেই দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের মাদক নেটওয়ার্ক অব্যাহত রেখেছিল। যারা শেল্টার দিত-তারাই এখন পিছু লেগেছে মাদক ব্যবসায়ীদের। ফলে ব্যবসা গুটিয়ে নিজ নিজ এলাকা ছাড়তে বাধ্য হয়েছে মাদক ব্যবসায়ীরা। ফলে ইয়াবার আকাল দেখা দিয়েছে মাদকের বাজারে।

মাদকের ডেরা বলে পরিচিত চকবাজারের ইসলামবাগ, লালবাগের শহীদ নগর, বংশালের আগামাসী লেন, কমলাপুরের টিকাটুলী বস্তি মোহাম্মদপুরের জেনেভাক্যাম্প, যাত্রাবাড়িরর ধলপুর বস্তি, শাহআলীর ঝিলপাড় বস্তিসহ নগরীর, বেগমবাজার, বিজয়নগর, খিলগাঁওসহ সর্বত্রই মাদকবিরোধী অভিযানে আত্মগোপনে চলে গেছে মাদক ব্যবসায়ীরা। ফলে আসক্তদের একটি অংশ দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানোর চেষ্টা করছেন। অনেকেই মরণ নেশা ইয়াবা না পেয়ে মদের বার গুলোর দিকে ঝুঁকছেন। সাধারণত বছরে ১২ মাসের মধ্যে রোজার মাসে মদ বেচাকেনা কম হয়। এবারও যথারীতি তাই হচ্ছিল। কিন্তু অভিযান শুরু হয়ার পর থেকে বারগুলোতে নতুন মুখের সমাগম বেড়েছে অনেকাংশে। এদিকে বাংলা মটরের স্যালে, ইস্কাটনের গোল্ডেন ড্রাগন, মগবাজারের পিয়াসী, মহখালীর হোটেল জাকারিয়া, রুচিতা, ব্লুমুন, কাকরাইলের নাইটিংগেল, ঢাকা কলেজের সামনে গ্যালাক্সি, ফার্মগেটের রেডবাটন, শুক্রাবাদের অ্যারাম, গুলিস্তানের পূর্বাশাসহ রাজধানীর বারগুলোতে খোজ নিয়ে এসময় তথ্য জানা গেছে। মূলত সন্ধ্যার পর পরই এ সকল বার গুলোতে নতুন নতুন মুখ ঢুকছে। এতে আশ্চর্য এবং একই সঙ্গে খুশীও হচ্ছেন বারের বয়-বেয়ারারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বললেন, মদ খাইলে কিছু হয় না। কিন্তু যারা এখন নতুন মুখ তারা ইয়াবা না পেয়ে বারে আসছে এটা নিয়ে কোনো সন্দেহ নাই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাভারের হেমায়েত পুর, ও পুরান ঢাকার আসক্ত ২ জন বলেন, ইয়াবা না পেয়ে এখন সন্ধ্যার পর মদ খাচ্ছি। ইয়াবার নেশা কাটছে না এতে। তবে কিছুক্ষণের জন্য হলেও ভুলে থাকা যাচ্ছে। তারা আরও বলেন না পাওয়া গেলে আরো ভাল। এক সময় হয়তো এই নেশার টানটা আর থাকবে না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত