প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গৃহকর্ত্রীর নির্যাতন থেকে বাঁচতে কেরোসিন ঢেলে আত্মহত্যা!

সুজন কৈরী : রাজধানীর ধানমন্ডির একটি বাসায় গৃহকর্মী রত্না বেগমকে (২৩) কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। তবে পুলিশ বলছে, দীর্ঘদিন ধরে গৃহকর্ত্রী ওই গৃহকর্মীর ওপর নির্যাতন চালিয়েছেন। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গৃহকর্ত্রীর সামনে রত্না বেগম নিজের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন। এ ঘটনায় গৃহকর্ত্রী মুন্নী বেগমকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ধানমন্ডি আবাসিক এলাকার রোড-৩/এ, ৫০ নম্বর বাড়ির ৪/বি নম্বর ফ্লাটে এ ঘটনা ঘটে। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় ওইদিন দুপরে তাকে মোহাম্মদপুরের সিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পরে পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য লাশ উদ্ধার করে বুধবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠায়। নিহত রত্নার বাড়ি লক্ষীপুরের রামগতির চরসীতা গ্রামে। তার পিতার নাম জাহাঙ্গীর আলম।

নিহতের বাবা বাদি হয়ে ধানমন্ডি থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলায় হত্যার অভিযোগ না করে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, নিহতের পিতা এ ব্যাপারে মামলাই করতে চাননি। এমনকি লাশের ময়নাতদন্ত করতেও রাজি হননি। হাসপাতালে মৃত্যুকালীন জবানবন্দিতে নিহত রত্না নিজেই গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়ার কথা বলেছেন। এ কারণে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশের রমনা বিভাগের এডিসি আব্দুল্লাহ হিল কাফী বলেন, নিহত রত্না ৭ মাস ধরে ধানমন্ডির ৩/এ নম্বর রোডের ৫০ নম্বর বাড়ির মহিউদ্দিন ওরফে মাইনুদ্দিনের ফ্ল্যাটে গৃহকর্মী হিসাবে কাজ করতেন। সিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় রত্না চিকিৎসকদের কাছে মৃত্যুকালীন জবানবন্দি দিয়ে যান তিনি।

জবানবন্দীতে তিনি বলেন, ৬ মাস ধরেই বিভিন্ন কারণে গৃহকর্ত্রী মুন্নি বেগম তাকে শারীরিক নির্যানত করতো। মঙ্গলবার দুপুরে রান্না খারাপ হওয়া বেতের লাঠি দিয়ে মারধর করা হয় তাকে। এই নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে তিনি নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এসময় গৃহকর্ত্রী তাকে বলেন, ‘তুই মরে যা। না হলে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখা হবে। মানুষকে বলব যে সে আত্মহত্যা করেছে।’ গৃহকর্ত্রীর কাছ থেকে এ ধরনের কথা শোনার পর সে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে বাসার লোকজন তাকে উদ্ধার করে সিটি হাসপাতালে ভর্তি করান।

ধানমন্ডি থানার ওসি আব্দুল লতিফ জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহকর্তা ও গৃহকর্ত্রীকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, মেয়েটি নিজেই গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন। এ কারণে এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত