প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

“দুটি ব্যাংকের কেলেঙ্কারির কারণে মানুষ ব্যাংক উদ্যোক্তাদের বাঁকা চোখে দেখে”

জাফর আহমদ: দুটি ব্যাংকের ক্যালেঙ্কারি আমাদের মাথা হেট করে দিয়েছে। আমাদের দেখলে মানুষ মনে বাকা চোখে দেখে, তারা মনে করে আমরা সবাই খারাপ হয়ে গেছি। এমন মন্তব্য করেছেন, মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান এএস ম ফিরোজ আলম।

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ১৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকি উপলক্ষে গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় ব্যাংকের পরিচারক এম. আমানুল্লাহ, মো. সেলিম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মসিহুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন আ. হামিদ সোহাগ।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এএসএম ফিরোজ আলম বলেন, ঋণ বিতরণে সুদ হার কমানোর জন্য আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে থেকে নিদের্শনা নিয়েছি। সরকারের যে অর্থ ব্যাংকে রাখা হয়-এর মাত্র ২৫ শতাংশ বেসরকারি ব্যাংকগুলোতে রাখ হয়। রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংকগুলাতে রাখা হয় ৭৫ শতাংশ। বিপুল এ অর্থ রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংকগুলাতে পড়ে থাকে। এ অর্থ বেসরকারি ব্যাংকগুলোতে রাখলে সার্বিক সুদ কমানো সম্ভব হবে। এগুলো অর্থনীতির বৃহত্তর স্বার্থে করছি। এটা বাংলাদেশ ব্যাংকের সাথে বিরোধের কোন সম্ভবনা নেই।

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং ‘মাই ক্যাশ’ আরও দক্ষ ও সেবার পরিধি বৃদ্ধি করা হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। এ জন্য আন্তর্জিতক খ্যাতি সম্পন্ন কোন প্রতিষ্ঠানকে যুক্ত করা হবে। পাশাপাশি তহবিলও বৃদ্ধি করা হবে বলে জানান ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মসিহুর রহমান ।

পরিচালক আলহাজ্ব আকরাম হোসেন বলেন, ব্যাংকটি গতানুগতিক কার্যক্রমের বাইরে দেশ ও সমাজের চিন্তা মাথায় রেখে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা মাফিক এগুনো হচ্ছে। এ কারণে মাকের্›টাইল ব্যাংক দ্বিতীয় প্রজন্মের ব্য্ংাক হওয়ার পরও অনেক প্রথম প্রজন্মের ব্যাংককে পেছনে ফেলে রেটিংয়ে চতুর্থ স্থান অধিকার করেছে। আগামীতে অবস্থারও আরও উন্নতি হবে।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ৩১ মার্চ পর্যন্ত ব্যাংকটির ব্যালেন্স সীটের সাইজ দাঁড়িয়েছে ২৬ হাজার ২৭৮ কোটি টাকা। মোট আমানতের পরিমান ২১ হাজার ৬৯৭ কোটি টাকা। ঋণ ও অগ্রিমের পরিমান ২০ হাজার ৩০১ কোটি টাকা। এবং মোট মুনাফার পরিমান দাঁড়িয়েছে ১৬৭ কোটি টাকা। ব্যাংকটির সিএসআর এর বিভিন্ন কার্যক্রমের চিত্র তুলে ধরে বলা হয়- ‘আব্দুল জলিল শিক্ষাবৃত্তি’ প্রকল্পের অধীনে ২০১৫ সালে ৮৬৭ জন, ২০১৬ সালে ১০৯১ জন ছাত্রকে এবং ২০১৭ সালে ১১০২ জনকে শিক্ষা বৃদ্ধি দেওয়া হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ