প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্যাংকের ঋণ শৃঙ্খলা, অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা ও নিয়ন্ত্রণ কাঠামোগুলো জোরদারের নির্দেশ

সোহেল রহমান: রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর দক্ষতা বাড়াতে ব্যাংকের ঋণ শৃঙ্খলা, অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা ও নিয়ন্ত্রণ কাঠামোগুলো জোরদার করার নির্দেশ দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ। একই সঙ্গে অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা কমিটির স্বাধীনভাবে কাজ করার বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে।

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর সার্বিক অবস্থা পর্যালোচনা করে ব্যাংকগুলোর দক্ষতা বাড়াতে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের এক প্রতিবেদনে এসব প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর ঋণ বিতরণ ও আদায়ের ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা আনতে পর্যাপ্ত নিয়ন্ত্রণমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার। অন্যদিকে সাধারণভাবে অপেক্ষাকৃত দুর্বল বা তুলনামূলকভাবে কম দক্ষতাসম্পন্ন লোকদের নিরীক্ষা কাজে নিয়োজিত করা হয়। অথচ সংশ্লিষ্ট আইন-কানুন সম্পর্কে ভাল জানা ও অভিজ্ঞতা ছাড়া অডিট কার্যাবলী সঠিকভাবে সম্পাদন করা সম্ভব নয়।

এমতাবস্থায় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর দক্ষতা বাড়াতে ব্যাংকের ঋণ শৃঙ্খলা, অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা ও নিয়ন্ত্রণ কাঠামোগুলো জোরদার করতে হবে এবং এ লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রশিক্ষিত, দক্ষ ও সংশ্লিষ্ট সনদধারী জনবল নিয়োগ বা পদায়ন করতে হবে। প্রয়োজনে পদায়ন সংক্রান্ত একটি নীতিমালা বা গাইডলাইন প্রণয়ন ও তা অনুসরণ করতে হবে।

এছাড়া রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর দৈনন্দিন কার্যক্রম পরিচালনায় অন-লাইন সিস্টেম চালু, ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সিস্টেম অডিট পরিচালনা, উপযুক্ত সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার ব্যবহার, অন-লাইন ব্যাংকিং-এ সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা ও রিজার্ভ চুরির মত ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে আর না ঘটে সেজন্য এ বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতামুলক ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা বলা হয়েছে প্রতিবেদনে।
অন্যান্যের মধ্যে ফ্যাক্টরিং বিষয়ক একটি নীতিমালা বা গাইডলাইন প্রণয়ন এবং সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীর আওতায় ব্যাংকগুলো কর্তৃক প্রদত্ত সেবার বিপরীতে সার্ভিস চার্জ চালুর সুপারিশ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ফ্যাক্টরিং বিষয়ক সুবিধার আওতায় ব্যাংকগুলো নিজেদের মধ্যে বা বড় বড় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ব্যবসায়িক কেনা-বেচা (ইনভয়েস/বিল) করে থাকে। এটি অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক উভয় প্রকারের ব্যবসা বা লেনদেনের একটি মাধ্যম হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। কিন্তু এ বিষয়ে নিদিষ্ট কোন নীতিমালা নাই। এ ধরনের লেনদেনকে আইনী কাঠামোর আনার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক একটি নীতিমালা করা প্রয়োজন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত