প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আন্তর্জাতিক চাপের মুখেও রাখাইনে জাতিগত নিধন চলছে: যুক্তরাষ্ট্র

সজিব খান: আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চাপের মুখেও মিয়ানামরের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনী জাতিগত নিধন অব্যাহত রেখেছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার প্রকাশিত বৈশ্বিক ধর্মীয় স্বাধীনতার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের তৈরি করা বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানান বিশ্বব্যাপী ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক বিশেষ দূত স্যাম ব্রোউনব্যাক।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নির্যাতন ও সহিংসতার ঘটনায় গত নভেম্বরে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। তারপরও সেখানে সহিংসতা বন্ধ হয়নি। বরং নির্যাতন, নিপীড়ন, হত্যা, ধর্ষণের শিকার হয়ে নতুন করে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।

এমনকি মিয়ানমারের কাচিনে খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীদের বিরুদ্ধে এখনো সহিংসতা অব্যাহত আছে বলে মন্তব্য করেন বৈশ্বিক ধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক মার্কিন দূত। মিয়ানমারের বিভিন্ন রাজ্যেই জাতিগত সহিংসতা চলছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিয়ানমারে নির্যাতনের মুখে জীবন বাঁচাতে বহু রোহিঙ্গা দেশটি থেকে বাস্তুচ্যুত হয়েছে। এর মধ্যে আনুমানিক ৬ লাখ ৮৮ হাজার রোহিঙ্গা প্রতিবেশি দেশ বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

গত বছরের আগস্টে রাখাইনের বেশ কয়েকটি পুলিশ ও সেনা চেকপোস্টে হামলার অভিযোগে ২৫ আগস্ট থেকে অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী। অভিযানের নামে ওই অঞ্চলে সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের ওপর অত্যাচার, নির্যাতন চালায়। সেনাবাহিনীর হামলার মুখে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশের উপকূলবর্তী অঞ্চলে আশ্রয় নেয়। এদের মধ্যে বেশির ভাগই নারী ও শিশু। এ সময় মুসলিমদের পাশাপাশি কিছু হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষও সহিংসতার মুখে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে চলে আসে।  এর আগে বিভিন্ন সময়ে আরো চার লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসে। সূত্র: নিউ ইয়র্ক টাইমস

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত