প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আইন বানানোর সময় সাবধান!

জাকির তালুকদার: ১৯৭৪-৭৫ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের কথা আমাদের মনে আছে। আইনটি পরে ‘কুখ্যাত আইন’ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছিল। এবং আওয়ামী লীগের প্রণীত সেই আইনের দ্বারা সবচাইতে বেশি অত্যচারিত হয়েছিল আওয়ামী লীগ এবং প্রগতিশীল দলগুলোর নেতা-কর্মী। মোশতাক শাসনে, জিয়াউর রহমানের শাসনামলে, এরশাদের শাসনামলে বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের ওপর ব্যাপক প্রয়োগ ঘটেছে সেই কুখ্যাত আইনের। সেই আইনের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করতে হয়েছে প্রায় সকল দলকেই। এমনকি প্রণেতা আওয়ামী লীগকেও।

ক্ষমতা থেকে সরে যেতে বাধ্য হওয়ার সময় এরশাদ এক অধ্যাদেশের মাধ্যমে আইনটি বাতিল করেছিলেন। তবে সেটি তিন জোট মেনে নেয়নি। কারণ এরশাদকে গ্রেপ্তার করার জন্য এই আইনটির দরকার পড়েছিল তখন। পরবর্তীতে সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে বাতিল করা হয়েছিল আইনটিকে। বাংলাদেশের ইতিহাসে নিবর্তনমূলক আইনের উদাহরণ একটা নয়। এখনো বিদ্যমান আছে কিছু আইন। আবার নতুন এমন সব আইন এবং বিধি প্রণয়ন করা হচ্ছে, যা বিরোধী দলের জন্য তো বটেই, সাধারণ মানুষের জন্যও অস্বস্তিকর। কোনো আইন তৈরির সময় ক্ষমতাসীন সরকারি দলের উচিত একটু দূরদৃষ্টিসম্পন্ন হওয়া। নিজেদের সরকারকে বারবার জিতিয়ে আনানোর জন্য, নির্বাচনে নিজেদের প্রার্থীদের সুবিধা করে দেওয়ার জন্য যখন বিধিমালা তৈরি বা পরিবর্তন করা হয়, তখন জনগণের কথা মনে রাখতে না চাইলেও এটুকু অন্তত মনে রাখা উচিত যে নিজেরা বিরোধী দলে পরিণত হলে এইসব আইন এবং বিধিমালা তাদের নিজেদের জন্যই আত্মধ্বংসী হয়ে দাঁড়াবে।

রাষ্ট্রবিজ্ঞান সম্পর্কে যাদের ন্যূনতম ধারণা আছে, ইতিহাস সম্পর্কে যাদের সামান্যতম জ্ঞান আছে, তারা সবাই জানে কোনো দেশে কোনো দল ক্ষমতায় চিরস্থায়ী হতে পারে না। সেটি খুব ভালো ভালো কাজ করেও না, খুব নির্যাতন-অত্যাচার চালিয়েও না। আজ যে কুখ্যাত ৫৭ ধারা বা ওইরকম আইন দিয়ে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ওপর দৃশ্যমান খড়্গ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে, সেই আইনের অপব্যবহারের সবচাইতে বেশি শিকার হতে হবে হয়তো একসময় এই আইনের প্রণেতাদেরই।

সিটি নির্বাচনে এমপিদের না যাওয়ার বিধানটি বদলে দিয়ে নিজেদের প্রার্থীকে জিতিয়ে আনার সম্ভাবনা কতটুকু বাড়বে তা আমরা জানি না। তবে এটুকু বলা যায়, এমপিরা সেখানে গিয়ে জনমতকে তেমন প্রভাবিত করতে না পারলেও প্রশাসন, পুলিশ এবং অন্যান্য রাষ্ট্রযন্ত্রকে প্রভাবিত করার চেষ্টা যে করবেন, সে বিষয়ে আশঙ্কা থেকেই যায়। এখন আইন প্রণেতারা একবার নিজেদের বিরোধী দলের অবস্থানে বসিয়ে চিন্তা করে দেখুন। একটি প্রবাদ মাঝেমাঝেই সত্য হতে দেখা যায়Ñ ‘অন্যের জন্য গর্ত খুড়লে অনেক সময় সেই গর্তে নিজেই পড়তে হয়।’
লেখক : কথাসাহিত্যিক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত