প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঘুষ নিয়ে মাদক ব্যবসায়ীকে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ, ওসি প্রত্যাহার

শামসুজ্জোহা পলাশ, চুয়াডাঙ্গা: মাদক মামলার এক আসামীকে আটকের পর মোটা অংকের টাকা উৎকোচ নিয়ে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকরাম হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

সোমবার রাতে তাকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়। রাতেই থানার দায়িত্ব ইন্সপেক্টর তদন্ত জিএম এমদাদকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। একই সাথে ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তের জন্য তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রধান করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তরিকুল ইসলামকে।

কমিটির অন্য দুই সদস্য হলো- সহকারী পুলিশ সুপার (হেড কোয়াটার) আহসান হাবীব ও জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ইনচার্জ ইন্সপেক্টর গোলাম মোহাম্মদ। পুলিশের নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, সারাদেশে ন্যায় চুয়াডাঙ্গা জেলাতেও মাদক বিরোধী অভিযান চলমান রয়েছে।

এই মাদকবিরোধী অভিযান চলাকালেই মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করে মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে দামুড়হুদা মডেল থানার ওসির বিরুদ্ধে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে নানা সময়ে গ্রেফতার বাণিজ্যের অভিযোগও বেশ পুরানো।

সবশেষ চুয়াডাঙ্গার দর্শনার শীর্ষ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারের পর মোটা অংকের ঘুষ বাণিজ্যের মাধ্যমে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। ওই মাদক ব্যবসায়ীকে এলাকা থেকে পালিয়ে যাওয়ার জন্য সহযোগিতা করার মত গুরুতর অভিযোগও ওঠে ওসি আকরামের বিরুদ্ধে। বিষয়টি নিয়ে গত কয়েকদিনে তুমুল সমালোচনা শুরু হয়।

এমন প্রেক্ষিতে সোমবার রাত ১১টার দিকে পুলিশ সুপারের নির্দেশে ওসি আকরাম হোসেনকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে নেওয়া হয়। চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তিন সদস্যর একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির রির্পোট হাতে পাওয়ার পরই আকরামের বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত